default-image

লবণ উৎপাদনে চাষিদের ঋণ দিচ্ছে সরকার। কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম জেলার প্রান্তিক লবণচাষিদের ঋণ দেবে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক)। বিসিক নিজস্ব তহবিল থেকে স্বল্প সুদে এই ঋণ দেবে।

শিল্পসচিব কে এম আলী আজম গত বৃহস্পতিবার কক্সবাজারে লবণশিল্পের সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোর সঙ্গে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় এ ঘোষণা দেন। কক্সবাজার জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের শহীদ এ টি এম জাফর আলম সম্মেলনকক্ষে এই সভা হয়।

প্রান্তিক লবণচাষিদের ঋণের চেক দেওয়ার মাধ্যমে ঋণ কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয় বৃহস্পতিবার। প্রথম দিন চাষিদের দেওয়া হয় ১০ লাখ টাকার চেক।

শিল্পসচিব বলেন, কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম জেলার প্রান্তিক লবণচাষিদের ঋণ দিতে বিসিক প্রাথমিকভাবে পাঁচ কোটি টাকার ঋণ কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। পর্যায়ক্রমে এ তহবিল বাড়ানো হবে। বিসিক এক বিজ্ঞপ্তিতে এসব কথা জানিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, শিল্পসচিব বলেছেন, সরকারিভাবে এক লাখ টন লবণ ধারণ ক্ষমতার গুদাম তৈরি করার পরিকল্পনা হাতে নেবে শিল্প মন্ত্রণালয়। লবণের উৎপাদন খরচ কমানোর জন্যও কাজ করবে।

দেশের লবণশিল্পকে পুনরুজ্জীবিত করতে শিগগির উদ্যোগ নেওয়া হবে বলে জানিয়ে শিল্পসচিব আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা লবণচাষিদের প্রতি সহনশীল। তিনি লবণচাষিদের খোঁজখবর নেন।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে লবণ মিলমালিকদের পক্ষে মহেশখালী পৌর মেয়র মকছুদ মিয়া, বাংলাদেশ লবণ মিল মালিক সমিতির সভাপতি নুরুল কবির, বাংলাদেশ লবণচাষি কল্যাণ সমিতির সভাপতি মোস্তফা কামাল, ইসলামপুর লবণ মিল মালিক সমিতির সভাপতি শামসুল আলম আজাদ, বাংলাদেশ লবণ মিল মালিক সমিতির সাবেক সহসভাপতি নুরুল আবছার, মিলার ফরিদুল আলম, কাজী আবুল মাসুদ, শরীফ বাদশা, আবদুল গফুর প্রমুখ বক্তব্য দেন।

শিল্প থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন