default-image

তৈরি পোশাকশিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএর পরিচালনা পর্ষদের আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু ও ভীতিমুক্ত করার দাবি জানিয়েছে স্বাধীনতা পরিষদ। সংগঠনটির নির্বাচনকেন্দ্রিক নতুন এই জোটের আহ্বায়ক মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেছেন, ‘চলতি বছর বিজিএমইএর নির্বাচন কমিশনের কাছে চাওয়ার কিছু নেই। শুধু একটা জিনিসই চাই, ভোট সুষ্ঠু ও ভীতিমুক্ত হোক। নির্বাচনে আমরা ১০ ভোট পাই আর ১ ভোট পাই, তাতে কোনো দুঃখ নেই। ভোটে যেন জালিয়াতি না হয়।’

রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে আজ রোববার আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে স্বাধীনতা পরিষদের আহ্বায়ক মো. জাহাঙ্গীর আলম এসব কথা বলেন। তাঁকে বিজিএমইএর আগামী নির্বাচনে এই জোটের প্যানেল লিডার হিসেবে চূড়ান্ত করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে অলিরা ফ্যাশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হুমায়ুন রশিদ, লিবাস স্টিচের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শওকত হোসেন, ডিলাক্স ফ্যাশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক দেলোয়ার হোসেনসহ পোশাকশিল্পের বেশ কয়েকজন মালিক উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

দীর্ঘ সাত বছর পর বিজিএমইএর পরিচালনা পর্ষদের নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হওয়ার সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়েছে। গত নির্বাচনে সংগঠনটির নির্বাচনকেন্দ্রিক জোট সম্মিলিত পরিষদ ও ফোরাম সমঝোতার মাধ্যমে প্রার্থী দেয়। তখন স্বাধীনতা পরিষদ ঢাকায় ২৬টি পরিচালক পদে প্রার্থী দেওয়ায় নিয়ম রক্ষার ভোট হয়। আগামী নির্বাচনে তিন জোটই আলাদাভাবে প্রার্থী দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। আগামী ৪ এপ্রিল রাজধানীর রেডিসন হোটেলে ভোট গ্রহণ হওয়ার কথা রয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে গত নির্বাচন নিয়ে কথা বলেন জাহাঙ্গীর আলম। তিনি বলেন, ‘২০১৯ সালের নির্বাচনে আমাদের নমিনেশন পেপার ছিনতাই করা হয়। আমাদের লোকজন মারধরেরও শিকার হয়েছিলেন। তারপর ভোটের দিন আমাদের তিনজন প্রতিনিধিকে বের করে দেওয়া হয়।’ নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ করে তিনি আরও বলেন, নির্বাচনের দিন যাঁরা দেশের বাইরে ছিলেন, তাঁদেরও ভোট দিয়ে দেওয়া হয়েছিল।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে স্বাধীনতা পরিষদের আহ্বায়ক বলেন, ‘পোশাকশিল্পের স্বার্থে আমরা সে সময় নির্বাচন মেনে নিয়েছিলাম। কারণ, আমাকে তো বাঁচতে হবে। আমাকে মামলা করতে বলা হয়েছিল। আমি বলেছিলাম, আমার সামর্থ্য নেই।’

আগামী নির্বাচনকে সামনে রাখে স্বাধীনতা পরিষদ অপর দুই জোট সম্মিলিত পরিষদ বা ফোরামের সঙ্গে সমঝোতায় যাবে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘ঢাকার ২৬টি পরিচালক পদে আমরা প্রার্থী দেব। চট্টগ্রামেও প্রার্থী দেওয়ার চেষ্টা চলছে। সব মিলিয়ে আমাদের এককভাবে নির্বাচন করার প্রস্তুতি রয়েছে।’ তবে মতের মিল হলে যেকোনো জোটের সঙ্গে সমঝোতাও হতে পারে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

শিল্প থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন