বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নরসিংদীর পলাশে বাংলাদেশ জুট মিলসের উৎপাদন কার্যক্রম পরিদর্শনকালে গতকাল সোমবার এসব কথা বলেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বস্ত্র ও পাটসচিব মো. আবদুর রউফ, নরসিংদী জেলা প্রশাসক আবু নইম মোহাম্মদ মারুফ খান প্রমুখ।

বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী বলেন, ইতিমধ্যে নরসিংদীর বাংলাদেশ জুট মিলস ও চট্টগ্রামের কেএফডি জুট মিলস ভাড়ায় ইজারা দেওয়া হয়েছে। খুলনার ক্রিসেন্ট জুট মিলস এবং চট্টগ্রামের হাফিজ জুট মিলস ইজারা দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।

মন্ত্রী আরও বলেন, বিজেএমসির দুটি পাটকল ভাড়াভিত্তিক ইজারায় চালু হওয়ায় অনেকের কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হয়েছে। একই পদ্ধতিতে নতুন করে আরও পাটকল চালু হলে রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল থেকে বাধ্যতামূলক অবসরে পাঠানো শ্রমিকেরা চাকরিতে অগ্রাধিকার পাবেন।

লোকসানের বোঝা বইতে না পেরে ২০২০ সালের ১ জুলাই বিজেএমসির অধীন ২৫টি পাটকলের উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করে সরকার। বন্ধ হওয়ার আগের ১০ বছরে পাটকলগুলো ৪ হাজার ৮৫ কোটি টাকা লোকসান গুনেছে।

মন্ত্রণালয় জানায়, বন্ধ পাটকলের সব স্থায়ী শ্রমিকের গ্র্যাচুইটি, পিএফ, ছুটি নগদায়নসহ পাওনা বাবদ প্রায় ৩ হাজার ৫৬৩ কোটি টাকা পরিশোধ করা হয়েছে।

আর বদলি শ্রমিকদের বকেয়া মজুরি, অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারীদের সব পাওনা পরিশোধের জন্য চেষ্টা চলছে।

শিল্প থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন