কোম্পানিটি শেয়ারবাজার থেকে ১১ কোটি টাকার মূলধন সংগ্রহ করবে। স্বল্প মূলধনী কোম্পানি বিধির আওতায় যোগ্য বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে এ মূলধন সংগ্রহ করা হবে।

সভা শেষে বিএসইসি এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, ১ কোটি ১০ লাখ শেয়ার ছেড়ে কোম্পানিটি ১১ কোটি টাকা মূলধন সংগ্রহ করবে। যোগ্য বিনিয়োগকারী জন্য প্রস্তাব বা কোয়ালিফাইড ইনভেস্টর অফারে (কিউআইও) প্রতিটি শেয়ার ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে বিক্রি করা হবে। এ শেয়ার তাঁরাই কিনতে পারবেন, যাঁদের শেয়ারবাজারে ন্যূনতম এক কোটি টাকার (বাজারমূল্যে) বিনিয়োগ রয়েছে।

বিএসইসি আরও জানিয়েছে, কোম্পানিটি শেয়ারবাজার থেকে যে মূলধন সংগ্রহ করবে, তা ব্যাংকঋণ পরিশোধ, চলতি মূলধন হিসেবে কাজে লাগানোর পাশাপাশি কিউআইওর খরচের পেছনে ব্যয় করবে। গত ডিসেম্বর শেষে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস দাঁড়িয়েছে ৭৬ পয়সায়। কোম্পানিটিকে মূলধন সংগ্রহের অনুমোদন দেওয়ার পাশাপাশি শর্তও জুড়ে দিয়েছে বিএসইসি। যেদিন থেকে শেয়ারবাজারের এসএমই বোর্ডে লেনদেন শুরু হবে সেদিন থেকে পরবর্তী ৩ বছর পর্যন্ত কোম্পানিটি কোনো বোনাস শেয়ার ইস্যু করতে পারবে না।

কোম্পানিটির শেয়ার তাঁরাই কিনতে পারবেন, যাঁদের শেয়ারবাজারে ন্যূনতম এক কোটি টাকার (বাজারমূল্যে) বিনিয়োগ রয়েছে।

এর আগে গত এপ্রিলে এসএমই কোম্পানি হিসেবে চট্টগ্রামভিত্তিক শতভাগ রপ্তানিমুখী প্রতিষ্ঠান নিয়ালকো অ্যালয়সকে প্রথমবারের মতো কোয়ালিফায়েড ইনভেস্টর অফার বা কিউআইওর মাধ্যমে সাড়ে সাত কোটি টাকার পুঁজি উত্তোলনের অনুমোদন দিয়েছিল বিএসইসি। এরই মধ্যে প্রথম কোম্পানি হিসেবে নিয়ালকো অ্যালয়স চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) এসএমই বোর্ডে তালিকাভুক্ত হয়েছে। কোম্পানিটির ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের শেয়ারের সর্বশেষ বাজারমূল্য ছিল ২৩ টাকা।

শেয়ারবাজার থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন