করোনার বড় ধাক্কা বার্জারের আয়ে

বিজ্ঞাপন
default-image

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত বহুজাতিক কোম্পানি বার্জারের আয় পৌনে ৫ গুণ কমিয়ে দিয়েছে করোনাভাইরাস। করোনার কারণে এপ্রিল ও মে মাসে দেশজুড়ে অবরুদ্ধ অবস্থা (লকডাউন) থাকায় কোম্পানির আয়ে বড় ধরনের নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে।

দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) আজ বৃহস্পতিবার বার্জার বাংলাদেশ তাদের এপ্রিল-জুন প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। সেখান থেকে করোনায় কোম্পানিটির বড় অঙ্কের আয় কমে যাওয়ার তথ্য পাওয়া গেছে।

প্রকাশিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, চলতি বছরের এপ্রিল-জুন সময়ে বার্জারের শেয়ারপ্রতি আয় বা ইপিএস কমে নেমে এসেছে ২ টাকা ৩২ পয়সায়। আগের বছর, অর্থাৎ, ২০১৯ সালের একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ১১ টাকা ১২ পয়সা। সেই হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে করোনার ধাক্কায় কোম্পানিটির আয় কমেছে ৮ টাকা ৮০ পয়সা বা প্রায় ৮০ শতাংশ।

কোম্পানিটি আয় কমার জন্য করোনায় এপ্রিল-মে মাসে দেশজুড়ে লকডাউনে বিক্রি কমে যাওয়াকে প্রধান কারণ হিসেবে উল্লেখ করেছে। বিক্রি কমার পাশাপাশি বকেয়া আদায়ও কমে গেছে বলে জানিয়েছে কোম্পানিটি। এ কারণে কোম্পানির শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থের (নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো) পরিমাণও কমে গেছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন