default-image

বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্যশিল্প করপোরেশনের (বিএসএফআইসি) মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানের মধ্যে তিনটি শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত। এগুলো হলো শ্যামপুর সুগার মিলস, জিল বাংলা সুগার ও রেনউইক যজ্ঞেশ্বর। এর মধ্যে শ্যামপুর ও জিল বাংলা সুগার মিলস নিম্নমান বা জাঙ্ক কোম্পানি হিসেবে ‘জেড’শ্রেণিভুক্ত। অপর কোম্পানি রেনউইক যজ্ঞেশ্বর ভালো মানের কোম্পানি হিসেবে ‘এ’ শ্রেণিভুক্ত। বিএসএফআইসির ১৭ প্রতিষ্ঠানের একমাত্র লাভে আছে রেনউইক যজ্ঞেশ্বর।

এদিকে সরকারি এসব কোম্পানির মূলধন খুবই কম। এ কারণে কোম্পানিগুলোকে মাঝেমধ্যে কারসাজির জন্য বেছে নেন কারসাজিকারকেরা। উল্লিখিত তিন কোম্পানির মধ্যে সবচেয়ে বেশি মূলধন জিল বাংলা সুগার মিলসের, তা–ও মাত্র ৬ কোটি টাকা। এ ছাড়া শ্যামপুর সুগার মিলসের মূলধন ৫ কোটি এবং রেনউইক যজ্ঞেশ্বরের মূলধন ২ কোটি টাকা। স্বল্প মূলধনি কোম্পানি হওয়ায় এসব কোম্পানির শেয়ারের সংখ্যা এমনিতে কম। তার মধ্যে বাজারে লেনদেনযোগ্য শেয়ার আরও কম। কারণ, তিন কোম্পানির সিংহভাগ তথা ৫১ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সরকারের হাতে। এ কারণে এসব কোম্পানির শেয়ারে কম পুঁজি বিনিয়োগ করে কৃত্রিম সংকট তৈরির মাধ্যমে দ্রুত দাম বাড়ানোর সুযোগ পান কারসাজিকারকেরা।

বিজ্ঞাপন

সম্প্রতি জিল বাংলার শেয়ার নিয়ে এ ধরনের কারসাজির ঘটনা ঘটে। এতে দুই মাসে ৩২ টাকার শেয়ারের দাম ওঠে ২০০ টাকার ওপর। দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সদস্যভুক্ত ব্রোকারেজ হাউস ইউনিরয়েল সিকিউরিটিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রতিষ্ঠানের নামে থাকা আলাদা দুটি বিও (বেনিফিশিয়ারি ওনার্স) হিসাব থেকে বিপুল শেয়ার কিনে বাজারে কৃত্রিম সংকট তৈরি করে। পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) প্রাথমিক তদন্তে তা ধরা পড়ে। এ কারণে বেশ কিছুদিন জিল বাংলার শেয়ারের লেনদেনও স্থগিত করা হয়। পরে কারসাজির সঙ্গে জড়িত দুটি বিও হিসাবের শেয়ার জব্দ করে ১ নভেম্বর থেকে কোম্পানিটির লেনদেনের ওপর থেকে স্থগিতাদেশ তুলে নেওয়া হয়।

বিএসএফআইসির তিন কোম্পানির মধ্যে চিনিকল দুটির লভ্যাংশসংক্রান্ত কোনো তথ্যই মিলছে না ডিএসইর ওয়েবসাইটে। রেনউইক যজ্ঞেশ্বর সর্বশেষ ২০১৮ সালে বিনিয়োগকারীদের ১২ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছিল। কিন্তু শ্যামপুর সুগার ও জিল বাংলা সুগার মিলস সর্বশেষ কবে বিনিয়োগকারীদের লভ্যাংশ দিয়েছিল, আদৌ দিয়েছিল কি না, তার কোনো তথ্যই নেই ডিএসইর ওয়েবসাইটে।

বিএসএফআইসির তালিকাভুক্ত তিন কোম্পানির মধ্যে সবার আগে শেয়ারবাজারে এসেছিল জিল বাংলা সুগার মিলস, ১৯৮৮ সালে।

মন্তব্য পড়ুন 0