পেঁয়াজের শুল্ক কমাতে চিঠি

  • পেঁয়াজের বাজার আবারও অস্থির হয়ে ওঠায় আমদানিতে আরোপিত ৫ শতাংশ শুল্ক প্রত্যাহারের অনুরোধ জানিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

  • চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরের ১ জুলাই থেকে পেঁয়াজ আমদানিতে ৫ শতাংশ শুল্ক আরোপ করা হয়।

  • গত বছরের ২৯ সেপ্টেম্বর ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি পুরোপুরি বন্ধ করে দিলে দেশীয় বাজার অস্থির হয়ে ওঠে।

বিজ্ঞাপন
default-image

পেঁয়াজের বাজার আবারও অস্থির হয়ে ওঠায় আমদানিতে আরোপিত ৫ শতাংশ শুল্ক প্রত্যাহারের অনুরোধ জানিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। গত মঙ্গলবার মন্ত্রণালয় এ অনুরোধ জানিয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে (এনবিআর) চিঠি দিয়েছে।

মন্ত্রণালয়ের চিঠিতে বলা হয়, পেঁয়াজ আংশিক আমদানিনির্ভর নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য। নিকট অতীতে এ পণ্যের বাজার বেশ কয়েকবার অস্থিতিশীল হয়েছে। ২০১৯-২০ অর্থবছরে এ সংকট মারাত্মক আকার ধারণ করেছিল। বাজার পরিস্থিতি পর্যালোচনায় দেখা যায়, পণ্যটির মূল্য সম্প্রতি অনেকটাই বেড়েছে, তার অন্যতম কারণ, আমদানি মূল্য বৃদ্ধি পাওয়া।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
আশা করছি, এনবিআর শিগগিরই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে
মো. জাফরউদ্দীন, বাণিজ্যসচিব

চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরের ১ জুলাই থেকে পেঁয়াজ আমদানিতে ৫ শতাংশ শুল্ক আরোপ করা হয়। এখন জাতীয় স্বার্থেই পেঁয়াজের ওপর আরোপিত আমদানি শুল্ক আপাতত প্রত্যাহারের অনুরোধ জানিয়েছে মন্ত্রণালয়।

জানতে চাইলে বাণিজ্যসচিব মো. জাফরউদ্দীন প্রথম আলোকে বলেন, ‘আশা করছি, এনবিআর শিগগিরই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে।’

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গত বছরের ২৯ সেপ্টেম্বর ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি পুরোপুরি বন্ধ করে দিলে দেশীয় বাজার অস্থির হয়ে ওঠে। এ বছরের ফেব্রুয়ারির শেষের দিকে সেই নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয় ভারত। কিন্তু এর পরের মাসেই শুরু হয় মহামারি করোনাভাইরাসের প্রকোপ। ফলে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ হয়ে যায়।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন