default-image

বড় উত্থানের একদিন পর আজ কিছুটা মূল্য সংশোধন দেখা যাচ্ছে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই)। আজ বুধবার লেনদেনের প্রথম দেড় ঘণ্টায় ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স কমেছে ৫৩ পয়েন্ট। সূচক কমলেও লেনদেনের গতি বেশ ভালো। বেলা সাড়ে ১১টা নাগাদ লেনদেন হয়েছে ৯৮০ কোটি টাকা।

অপর দিকে সার্বিক সূচক কমেছে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই)। বেলা সাড়ে ১১টা নাগাদ সূচকটি হারিয়েছে ২২২ পয়েন্ট।

এখন থেকে শেয়ারবাজারে এক মাসের মধ্যে যেসব কোম্পানির শেয়ারের দাম ৫০ শতাংশ বাড়বে বা কমবে, সেসব কোম্পানির বিরুদ্ধে তদন্ত হবে। এ বিষয়ে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) দেশের দুই স্টক এক্সচেঞ্জ কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার স্টক এক্সচেঞ্জ দুটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও প্রধান নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তার (সিআরও) কাছে এ–সংক্রান্ত নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বাজার বিশ্লেষকেরা বলছেন, ওই সিদ্ধান্তের কিছুটা প্রভাব দেখা যাচ্ছে আজ শেয়ারবাজারে। শুরু থেকেই একটা নিম্নমুখী প্রবণতা রয়েছে।

ডিএসইতে আজ বেলা সাড়ে ১১টা নাগাদ হাতবদল হওয়া শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১১৫টির, কমেছে ১৭৪টির, অপরিবর্তিত আছে ৫৯টির।

গতকাল লেনদেন শেষে ডিএসইএক্স সূচক বাড়ে ১৪২ পয়েন্ট। মোট লেনদেন হয় ১৯৮২ কোটি ৬৪ লাখ টাকার। গত তিন কার্যদিবস ডিএসইএক্স সূচক বেড়েছে ২৪০ পয়েন্ট। গত ৯ কার্যদিবস ধরেই লেনদেন পনেরো শ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে। বলা যায়, ২০১০ সালের অবস্থানে রয়েছে এখন লেনদেন পরিস্থিতি।

মন্তব্য করুন