বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

একাধিক ব্রোকারেজ হাউস ও মার্চেন্ট ব্যাংকের শীর্ষ নির্বাহী জানান, বিনিয়োগকারীদের পাশাপাশি ব্রোকারেজ হাউস ও মার্চেন্ট ব্যাংকের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিও ছিল হাতে গোনা। ঈদের ছুটির আমেজ কাটিয়ে রোববার থেকে শেয়ারবাজারের লেনদেন স্বাভাবিক ধারায় ফিরবে বলে ধারণা তাঁদের।

জানতে চাইলে ডিএসইর পরিচালক শাকিল রিজভী বলেন, ‘ঈদের ছুটির পর প্রথম কার্যদিবস হওয়ায় বাজারে বিনিয়োগকারীদের উপস্থিতি ছিল খুবই কম। এমনকি ব্রোকারেজ হাউসের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিও ছিল অর্ধেকের কম। আবার শেয়ারের দামও খুব বেশি বাড়েনি। এসব কারণে বাজারে লেনদেন কম হয়েছে। আশা করছি, আগামী রোববার থেকে বাজার আবার স্বাভাবিক ধারায় ফিরবে।’

ঢাকার বাজারে গতকাল লেনদেনের পরিমাণ ছিল ৪৬৯ কোটি টাকা, যা আগের কার্যদিবসের চেয়ে ৪০১ কোটি টাকা কম। দিন শেষে এ বাজারের প্রধান সূচকটি কমে দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ৬৪৩ পয়েন্টে। আর সিএসইতে এদিন লেনদেনের পরিমাণ ছিল প্রায় ১৫ কোটি টাকা, যা আগের দিনের চেয়ে ২০ কোটি টাকা কম।

এদিকে ডিএসই সূত্রে জানা গেছে, গতকাল ডিএসইতে মোট লেনদেনের (কেনাবেচা মিলিয়ে) প্রায় সাড়ে ৭ শতাংশ হয়েছে মোবাইলের মাধ্যমে। টাকার অঙ্কে যার পরিমাণ ছিল প্রায় ৭০ কোটি টাকা। অর্থাৎ গতকালের লেনদেনে যাঁরা অংশগ্রহণ করেছেন, তাঁদের বড় একটি অংশ বাসা বা বাড়ি থেকে মোবাইলের মাধ্যমে লেনদেনে অংশ নেন। স্বাভাবিক সময়ে ডিএসইর মোট লেনদেনের ৬ থেকে সাড়ে ৬ শতাংশ মোবাইলের মাধ্যমে কেনাবেচা হয়ে থাকে।

শেয়ারবাজার থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন