বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

উল্লিখিত চার কোম্পানি ছাড়া অন্য যেসব কোম্পানির লেনদেন আজ বন্ধ থাকবে সেগুলো হলো অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ, আমান কটন, বিডি অটোকারস, জেমিনি সী ফুড, জেনারেশন নেক্সট, জিপিএইচ ইস্পাত, ইন্ট্রাকো সিএনজি, খুলনা পাওয়ার, রেনউইক যোগেশ্বর, রিংসাইন টেক্সটাইল, সাফকো স্পিনিং, শাইনপুকুর সিরামিকস, শ্যামপুর সুগার, স্কয়ার টেক্সটাইল, তশরিফা ও ঝিলবাংলা। শেয়ারবাজারে এসব কোম্পানির সম্মিলিত লেনদেনের পরিমাণ ২০০ কোটি টাকার কাছাকাছি। ফলে কোম্পানিগুলোর লেনদেন বন্ধের কারণে শেয়ারবাজারের সামগ্রিক লেনদেনও কিছুটা কমতে পারে বলে মনে করছেন বাজারসংশ্লিষ্টরা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ডিএসইর শীর্ষ পর্যায়ের এক ব্রোকারেজ হাউসের প্রধান নির্বাহী বলেন, বেশ কিছুদিন ধরে ঢাকার বাজারে লেনদেনে শীর্ষ অবস্থান ধরে রেখেছে বেক্সিমকোর শেয়ার। গতকালও কোম্পানিটির সোয়া এক শ কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে। তাই এটির কারণেই আজ বাজারে শতকোটি টাকার লেনদেন কম হতে পারে।
এদিকে শেয়ারবাজারে এখন চলছে ব্যাংকের শেয়ারের আধিপত্য। আজ যেসব শেয়ারের লেনদেন বন্ধ থাকবে, সেখানে ব্যাংক খাতের কোনো কোম্পানি নেই। তাই ব্যাংক খাতের দাপট আজও অব্যাহত থাকলে সে ক্ষেত্রে ২০ কোম্পানির লেনদেন বন্ধের খুব বেশি প্রভাব বাজারে পড়বে না বলে মনে করছে বাজারসংশ্লিষ্টদের একটি পক্ষ।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার শেয়ারবাজারে এক দিনে ৩৭ কোম্পানির লেনদেন বন্ধ ছিল। এরপরও ওই দিন ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৩১ পয়েন্ট বেড়েছিল। লেনদেনও ছিল সাড়ে ১৪০০ কোটি টাকার বেশি।

শেয়ারবাজার থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন