default-image

ভারত থেকে ৫০ হাজার টন বাসমতী চাল আমদানি করবে সরকার। সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি গতকাল বুধবার এ–বিষয়ক একটি প্রস্তাব অনুমোদন করেছে।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের অনুপস্থিতিতে ভার্চ্যুয়াল এ সভায় সভাপতিত্ব করেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। সভা শেষে অনুমোদিত ক্রয় প্রস্তাবগুলোর বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব আবু সালেহ মোস্তফা কামাল।

জানানো হয়, ভারতের বীরভূম থেকে এ চাল আমদানি করা হবে। সরবরাহ করবে এমএসপিকে লিমিটেড। প্রতি কেজি চালের দাম পড়বে ৩৫ দশমিক ২৭ টাকা। সে হিসাবে ৫০ হাজার টন চাল আমদানিতে খরচ হবে ২ কোটি ৮ লাখ ডলারের সমপরিমাণ ১৭৬ কোটি ৩৮ লাখ টাকা।

ক্রয় কমিটির বৈঠকে চাল কেনাসহ ৩ হাজার ৮৮৪ কোটি ২৬ লাখ টাকা ব্যয়ে মোট ১২ ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে বলে জানান মোস্তফা কামাল।

সাংবাদিকদের আরও জানানো হয়, ২০২০-২১ অর্থবছরে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে চুক্তির মাধ্যমে কাতার থেকে ২৫ হাজার টন ইউরিয়া সার আমদানির প্রত্যাশাগত অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। এ জন্য ব্যয় হবে ৫৪ কোটি ৬৯ লাখ টাকা।

বিজ্ঞাপন

এ ছাড়া রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে সৌদি আরব থেকে আনা হবে ৬ লাখ টন ডিএপি সার। এতে ব্যয় ২ হাজার ৯৮ কোটি টাকা।

অনুমোদিত অন্য প্রস্তাবগুলো হচ্ছে ‘আনোয়ারা উপজেলা সংযোগ সড়কসহ কর্ণফুলী টানেল সংযোগ সড়ককে ৪ লেনে উন্নীতকরণ (শিকলবাহা-আনোয়ারা সড়ক’ শীর্ষক প্রকল্পের বিভিন্ন কাজ, বাংলাদেশ পুলিশের জন্য ১৭ তলা ফাউন্ডেশনসহ ১৫ তলার ১ হাজার বর্গফুটের প্রতি তলায় ৮টি ইউনিটবিশিষ্ট আবাসিক টাওয়ার এবং আনুষঙ্গিক কাজ, পাঁচটি লটে ৫ কোটি ৪৫ লাখ পিছ খাবার বড়ি কেনা, পায়রাবন্দর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন রবনাবাদ চ্যানেল (ইনার ও আউটার চ্যানেল) জরুরি রক্ষণাবেক্ষণ ড্রেজিং কাজ ইত্যাদি। এ ছাড়া বিদ্যুৎ খাতের কয়েকটি প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে।

মন্তব্য করুন