বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কোম্পানিটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বিক্রি বৃদ্ধির পাশাপাশি করপোরেট কর কমানোর সুফল মিলেছে মুনাফায়। আবার এ বছরের জানুয়ারিতে নতুন পণ্য বাজারে এনেছে কোম্পানিটি। মুনাফায় ২৪৮ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হলেও কোম্পানিটির বিক্রি বেড়েছে ৭৯ শতাংশ। গত বছরের মার্চে দেশে প্রথম করোনা শনাক্ত হয়। এরপর সংক্রমণ ঠেকাতে ২৬ মার্চ থেকে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়। এ কারণে ব্যবসা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বলতে গেলে বেশ কিছু বিক্রিই বন্ধ ছিল। তা সত্ত্বেও গত বছরের প্রথম ছয় মাসে কোম্পানিটি ২৬৪ কোটি টাকার সিমেন্ট বিক্রি করেছিল।

এ বছরের জানুয়ারি থেকে সিমেন্টের পাশাপাশি নতুন পণ্য বাজারে এনেছে কোম্পানিটি। আগের বছরের চেয়ে সিমেন্টের বিক্রিও অনেক বেড়েছে। তাতে চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসে কোম্পানিটির বিক্রি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৭৪ কোটি টাকায়। এর ফলে কোম্পানিটি অর্ধবার্ষিক হিসাবে বড় অঙ্কের মুনাফা করেছে।

২০১৪ সালে সুইজারল্যান্ডভিত্তিক কোম্পানি হোলসিম ও ফ্রান্সের লাফার্জ বৈশ্বিকভাবে একীভূত হওয়ার পর কোম্পানিটির নাম হয় ‘লাফার্জহোলসিম’। বৈশ্বিকভাবে একীভূত হওয়ার পর বাংলাদেশেও কোম্পানি দুটি এক হওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়। তারই অংশ হিসেবে ২০১৬ সালে হোলসিম বাংলাদেশকে কিনে নেয় লাফার্জ।

এদিকে মুনাফায় বড় উল্লম্ফন হলেও গতকাল শেয়ারবাজারে কোম্পানিটির শেয়ারের দাম ১ টাকা ৭০ পয়সা বা আড়াই শতাংশের বেশি কমেছে। গতকাল দিন শেষে কোম্পানিটির শেয়ারের দাম কমে দাঁড়ায় ৬৩ টাকা ৫০ পয়সায়।

শেয়ারবাজার থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন