default-image

করোনা ছোট-বড় প্রায় সবার ব্যবসায় ধস নামিয়ে দিয়েছে। এতে বিভিন্ন শিল্পপ্রতিষ্ঠান থেকে চাকরি হারাচ্ছেন অনেকে। কিন্তু সবার ব্যবসায় কি ধস নামিয়েছে করোনা? তথ্য-উপাত্ত বলছে ‘না’। করোনা কারও কারও ব্যবসার জন্য যেন আশীর্বাদই হয়েছে। শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত বহুজাতিক কোম্পানি ম্যারিকো বাংলাদেশের তথ্য-উপাত্ত অন্তত তা-ই বলছে। করোনা গত এপ্রিল থেকে জুন—এই তিন মাসে কোম্পানিটির বিক্রি বাড়ানোর পাশাপাশি মুনাফা বাড়িয়ে দিয়েছে।


এতটাই ভালো মুনাফা করেছে যে কোম্পানিটি তিন মাসের আয় থেকে ৩০০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ লভ্যাংশ পাবেন কোম্পানিটির উদ্যোক্তা-পরিচালক থেকে শুরু করে সব পর্যায়ের শেয়ারধারী।

নিয়ম অনুযায়ী, তালিকাভুক্ত কোম্পানি হিসেবে আজ বৃহস্পতিবার দেশের দুই স্টক এক্সচেঞ্জের ওয়েবসাইটে গত এপ্রিল-জুন সময়ের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করে ম্যারিকো। সেখানে দেখা যাচ্ছে, করোনার এ তিন মাসে কোম্পানিটির কর-পরবর্তী মুনাফা আগের বছরের একই সময়ের চেয়ে প্রায় সাড়ে ১৭ শতাংশ বেড়েছে। এতে উল্লেখিত তিন মাসে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় বা ইপিএস বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩১ টাকা ৬৪ পয়সায়। ২০১৯ সালের এপ্রিল-জুন সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস ছিল ২৬ টাকা ৯৫ পয়সা।

করোনায় ভালো ব্যবসার বিষয়ে জানতে চাইলে ম্যারিকো বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আশীষ গোপাল প্রথম আলোকে বলেন, ‘করোনার এ সময়ে মানুষের আমাদের ব্যবসায়িক কার্যক্রমের মূলে ছিল সদস্যদের প্রতিভা ও মেধার দৃঢ়তা। মানুষের স্বাস্থ্যসুরক্ষার বিষয়টি মাথায় রেখে আমরা নতুন কিছু পণ্য বাজারে এনেছি। মানুষ আমাদের সেসব পণ্যে আস্থা রেখেছে, যা আমাদের ব্যবসায় সহায়তা করেছে।’

বাংলাদেশে করোনায় সংক্রমিত প্রথম রোগী শনাক্ত হয় মার্চের প্রথমার্ধে। করোনায় প্রথম রোগী মারা যান ওই মাসের দ্বিতীয়ার্ধে। এরপর সংক্রমণ ঠেকাতে ২৬ মার্চ থেকে সরকার সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে। এতে জরুরি পণ্য ও সেবার বাইরে প্রায় সব ধরনের ব্যবসা ও শিল্পপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিল। এ কারণে এপ্রিল ও মে—এই দুই মাস ছিল ব্যবসার জন্য সবচেয়ে খারাপ সময়। জুনের শুরু থেকে ধীরে ধীরে ব্যবসা স্বাভাবিক হতে শুরু করে।

করোনার সময়ে ভালো ব্যবসা ও মুনাফার খবরে আজই ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) দুপুর সাড়ে ১২ টা পর্যন্ত কোম্পানিটির শেয়ারের দাম সাড়ে ১৭ টাকা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৫৮০ টাকায়। শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত বহুজাতিক কোম্পানি ম্যারিকো আজ করোনাকালে ভালো ব্যবসার খবর দিলেও গতকাল সিমেন্ট খাতের তালিকাভুক্ত বহুজাতিক দুই কোম্পানি তাদের প্রায় ৪০ শতাংশ বিক্রি কমার কথা জানিয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন