default-image

দুই দিনে বড় দরপতনে ১৬৬ পয়েন্ট খুইয়েছে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। এই দুই দিনের বড় দরপতনের কারণ খতিয়ে দেখতে ও করণীয় কী, তা জানতে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের ব্রোকারদের সংগঠন ডিবিএ ও মার্চেন্ট ব্যাংকারদের সংগঠন বিএমবিএ নেতাদের বৈঠকে ডেকেছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

আজ রোববার বিকেলে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বিএসইসি ভবনে বৈঠকটি হওয়ার কথা রয়েছে।

জানতে চাইলে বিএসইসির মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম বলেন, বাজার পরিস্থিতি নিয়ে এই বৈঠকে আলোচনা হওয়ার কথা রয়েছে।

আজ সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস লেনদেন শেষে ডিএসইতে প্রধান সূচক ডিএসইএক্স কমেছে ৮৪ পয়েন্ট। গত কার্যদিবস কমেছিল ৮১ পয়েন্ট। অপর দিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই কমেছে ২৬৪ পয়েন্ট।

বিজ্ঞাপন

কয়েক সপ্তাহ ধরে দেশে করোনার সংক্রমণ আবার বেড়েছে। বাজার বিশ্লেষকেরা বলছেন, সংক্রমণ বাড়ায় আবার লকডাউন জারি হতে পারে, এমন আতঙ্ক কাজ করেছে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে। এই ‘লকডাউন গুজবে’ দুই কার্যদিবস ধরে বড় দরপতন দেখা গেছে শেয়ারবাজারে।

ডিএসইতে আজ লেনদেনও কমেছে। আজ লেনদেন হয়েছে ৬১৫ কোটি ৯৭ লাখ টাকার। গত কার্যদিবস লেনদেনের পরিমাণ ছিল ৬৮৪ কোটি ৩৬ লাখ টাকার। আজ হাতবদল হওয়া শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর কমেছে ২৩৯ টির, বেড়েছে ৩১টির, অপরিবর্তিত আছে ৭৮টির দর।

ডিএসইতে আজ লেনদেনের শীর্ষে থাকা কোম্পানিগুলো হলো বেক্সিমকো লিমিটেড, রবি, বেক্সিমকো ফার্মা, লঙ্কা বাংলা ফাইন্যান্স, লাফার্জ হোলসিম বাংলাদেশ লিমিটেড, রহিমাফুড, সামিট পাওয়ার, জিবিবি পাওয়ার, বিএটিবিসি, ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড।

অপর দিকে সিএসইতে হাতবদল হওয়া শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর কমেছে ১৬৬টির, বেড়েছে ১৭টির, অপরিবর্তিত আছে ৪৮টির দর।

শেয়ারবাজার থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন