শেয়ারবাজারে ৬৬ কোম্পানির ফ্লোরপ্রাইস কাল থেকে উঠে যাচ্ছে। পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) আজ বুধবারের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সভা শেষে বিএসইসির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।
জানা গেছে, যেসব কোম্পানির শেয়ারের দাম দীর্ঘদিন ধরে ফ্লোরপ্রাইস বা সর্বনিম্ন মূল্যস্তরে আটকে আছে, সেগুলোর মধ্য থেকে ৬৬টি কোম্পানির ফ্লোরপ্রাইস তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। ফ্লোরপ্রাইসে আটকে থাকার কারণে এত দিন কোম্পানিগুলোর শেয়ারের লেনদেন হচ্ছিল না। এখন কোম্পানিগুলোর শেয়ার লেনদেনযোগ্য করতে ফ্লোরপ্রাইস তুলে নেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন
শেয়ারবাজারে অস্বাভাবিক পতন ঠেকাতে গত বছরের ১৯ মার্চ সব কোম্পানির শেয়ারের সর্বনিম্ন মূল্যস্তর বা ফ্লোরপ্রাইস বেঁধে দেওয়া হয়। যাতে ওই শেয়ার সেই দামের নিচে নামতে না পারে।

শেয়ারবাজারে অস্বাভাবিক পতন ঠেকাতে গত বছরের ১৯ মার্চ সব কোম্পানির শেয়ারের সর্বনিম্ন মূল্যস্তর বা ফ্লোরপ্রাইস বেঁধে দেওয়া হয়। যাতে ওই শেয়ার সেই দামের নিচে নামতে না পারে। এ ফ্লোরপ্রাইস বেঁধে দিয়েই মূলত গত বছরের ১৯ মার্চ সূচকের পতন থামানো হয়। এর আগে ১৮ মার্চ প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচকটি কমে ৩ হাজার ৬০০ পয়েন্টে নেমে এসেছিল। তখন সরকারের সিদ্ধান্তে বিএসইসি শেয়ারের দামের ওপর ফ্লোরপ্রাইস আরোপ করে।
ফ্লোরপ্রাইস আরোপের পর থেকে শতাধিক কোম্পানির শেয়ার ওই নির্ধারিত দামে আটকে যায়। দীর্ঘদিন ধরে এসব কোম্পানির উল্লেখযোগ্য শেয়ারের লেনদেন হচ্ছিল না। তাই ৬৬টি কোম্পানির শেয়ারকে লেনদেনযোগ্য করতে ফ্লোরপ্রাইস তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএসইসি।

শেয়ারবাজার থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন