দেশে প্রথমবারের মতো শেয়ারবাজার থেকে পুঁজি উত্তোলনের অনুমোদন পেয়েছে একটি এসএমই কোম্পানি। এসএমই কোম্পানি হিসেবে চট্টগ্রামভিত্তিক শতভাগ রপ্তানিমুখী প্রতিষ্ঠান নিয়ালকো অ্যালয়স কোয়ালিফায়েড ইনভেস্টর অফার বা কিউআইওর মাধ্যমে সাড়ে সাত কোটি টাকার পুঁজি উত্তোলন করবে। পুঁজি উত্তোলনের পর কোম্পানিটি স্টক এক্সচেঞ্জের এসএমই প্ল্যাটফর্মে বা বোর্ডে প্রথম এসএমই কোম্পানি হিসেবে তালিকাভুক্ত হবে।
পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) আজ বৃহস্পতিবার কোম্পানিটির কিউআইও অনুমোদন করেছে। কিউআইও হচ্ছে আইনের মাধ্যমে সুনির্দিষ্ট করা কিছু প্রাতিষ্ঠানিক ও ব্যক্তিশ্রেণির যোগ্য বিনিয়োগকারী। ওই বিনিয়োগকারীদের কাছেই শুধু কোম্পানিটি শেয়ার বিক্রি করতে পারবে।

বিজ্ঞাপন
গত বছরের শেষার্ধে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি নিয়ালকো অ্যালয়সের কিউআইও আবেদন একবার না–মঞ্জুর করে। কারণ, কোম্পানিটির কিউআইওর আবেদনের কিছু তথ্যের বিষয়ে আপত্তি তুলেছিল বিএসইসি।

জানা গেছে, এর আগে গত বছরের শেষার্ধে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি নিয়ালকো অ্যালয়সের কিউআইও আবেদন একবার না–মঞ্জুর করে। কারণ, কোম্পানিটির কিউআইওর আবেদনের কিছু তথ্যের বিষয়ে আপত্তি তুলেছিল বিএসইসি।
কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপকের দায়িত্বে রয়েছে এমটিবি ক্যাপিটাল। কিন্তু নিয়ালকো অ্যালয়স এমটিবির (মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক) গ্রাহক। গত বছর যখন কোম্পানিটি কিউআইওর আবেদন করে, তখন এমটিবিতে কয়েক কোটি টাকার ঋণ ছিল। তাই ওই ঋণ বিদ্যমান থাকা অবস্থায় এমটিবি ক্যাপিটাল ইস্যু ব্যবস্থাপক থাকায় আপত্তি তোলে বিএসইসি। তাই নতুন করে আবার আবেদনের নির্দেশ দেয় বিএসইসি।

প্রথম এসএমই কোম্পানি হিসেবে নিয়ালকো অ্যালয়সকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এখন পর্যন্ত আমাদের যে সিদ্ধান্ত তাতে যোগ্য বিনিয়োগকারীদের বাইরে এসএমই বোর্ডে অন্যরা লেনদেনে অংশ নিতে পারবেন না।
মোহাম্মদ রেজাউল করিম, নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র, বিএসইসি

জানতে চাইলে এমটিবি ক্যাপিটালের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খাইরুল বাশার এ টি মোহাম্মদ আজ বিকেলে প্রথম আলোকে বলেন, গত বছর যখন আবেদন করা হয়েছিল, তখন নিয়ন্ত্রক সংস্থার পক্ষ থেকে কিছু বিষয়ে আপত্তি তোলা হয়। ওই সব আপত্তি সংশোধন করে পুনরায় আবেদনের কথা বলা হয়েছিল। সেই অনুযায়ী, কোম্পানিটি এমটিবির ঋণ সমন্বয় করে দেয়। এরপর নতুন করে আবেদন করা হয়।
বিএসইসি জানিয়েছে, কোম্পানিটি যোগ্য বিনিয়োগকারীদের কাছে ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে ৭৫ লাখ শেয়ার বিক্রি করবে। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের পাশাপাশি বাজার সৃষ্টিকারী প্রতিষ্ঠান বা মার্কেট মেকার, উচ্চ সম্পদশালী ব্যক্তিরা এ কোম্পানির শেয়ার কেনার যোগ্য বিবেচিত হবেন। এর বাইরে ব্যক্তিশ্রেণির সাধারণ বিনিয়োগকারীদের মধ্যে বিভিন্ন সিকিউরিটিজে যাঁদের কোটি টাকার বিনিয়োগ রয়েছে, তাঁরাও কোম্পানিটির শেয়ার কিনতে পারবেন।

বিজ্ঞাপন
কোম্পানিটির বর্তমান পরিশোধিত মূলধন ২১ কোটি টাকা। কিউআইওর মাধ্যমে শেয়ারবাজার থেকে সাড়ে ৭ কোটি টাকা সংগ্রহের পর এ মূলধন বেড়ে হবে সাড়ে ২৮ কোটি টাকা।

সাধারণ পদ্ধতিতে বিনিয়োগকারীরা ব্রোকারেজ হাউসের মাধ্যমে আইপিওতে আবেদন করেন। কিন্তু কিউআইওতে স্টক এক্সচেঞ্জের মাধ্যমে যোগ্য বিনিয়োগকারীরা এসএমই কোম্পানির শেয়ারের আবেদন করবেন। ব্যক্তি বা প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ের একজন বিনিয়োগকারী সর্বনিম্ন ২ লাখ টাকা বা তার গুণিতক অঙ্কে যত শেয়ার পাওয়া যায়, তার জন্য আবেদন করতে পারবেন। তবে একজন বিনিয়োগকারী কোনো অবস্থাতেই কোম্পানি যে পরিমাণ শেয়ার ছাড়বে, তার ১০ শতাংশের বেশি শেয়ারের জন্য আবেদন করতে পারবেন না।
জানতে চাইলে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম প্রথম আলোকে বলেন, ‘প্রথম এসএমই কোম্পানি হিসেবে নিয়ালকো অ্যালয়সকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এখন পর্যন্ত আমাদের যে সিদ্ধান্ত তাতে যোগ্য বিনিয়োগকারীদের বাইরে এসএমই বোর্ডে অন্যরা লেনদেনে অংশ নিতে পারবেন না।’

কোম্পানিটির বর্তমান পরিশোধিত মূলধন ২১ কোটি টাকা। কিউআইওর মাধ্যমে শেয়ারবাজার থেকে সাড়ে ৭ কোটি টাকা সংগ্রহের পর এ মূলধন বেড়ে হবে সাড়ে ২৮ কোটি টাকা।

শেয়ারবাজার থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন