শেয়ারবাজার-সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ ব্যাংক ও বিএসইসির পরস্পরবিরোধী অবস্থান স্পষ্ট হয়ে ওঠে। এ অবস্থায় মঙ্গলবার দুই সংস্থার মধ্যে পূর্বনির্ধারিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে দুই পক্ষই সভাকে বেশ সৌহার্দ্যপূর্ণ ও ফলপ্রসূ হয়েছে বলে দাবি করে। মঙ্গলবারের সভা শেষে বিএসইসির কমিশনার শেখ শামসুদ্দিন আহমেদ আনুষ্ঠানিকভাবে সংবাদমাধ্যমকে বৈঠকের বিষয়ে অবহিত করেন। এ সময় তিনি বৈঠকে কিছু সিদ্ধান্ত হয়েছে বলেও জানিয়েছিলেন। তবে গতকাল বাংলাদেশ ব্যাংক বিজ্ঞপ্তি দিয়ে বলছে, বৈঠকে বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হলেও কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। এর মধ্য দিয়ে দুই সংস্থার মধ্যকার সমন্বয়হীনতা আরও প্রকট হয়ে উঠেছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকেরা।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত মঙ্গলবার বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এ কে এম সাজেদুর রহমান খানের সভাপতিত্বে বিএসইসির একটি প্রতিনিধিদলের সঙ্গে পূর্বনির্ধারিত সভা বাংলাদেশ ব্যাংকে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বিএসইসির উদ্যোগে গঠিত ক্যাপিটাল মার্কেট স্ট্যাবিলাইজেশন ফান্ডের ফলে তফসিলি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে সৃষ্ট জটিলতা নিরসন এবং পুঞ্জীভূত লোকসান থাকলেও সংশ্লিষ্ট বছরের মুনাফা থেকে নগদ লভ্যাংশ বিতরণের বিষয়ে আলোচনা হয়।

সভায় ব্যাংক কোম্পানি আইন, ১৯৯১ এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইন, ১৯৯৩-এর সংশ্লিষ্ট ধারার বিষয়গুলো ব্যাখ্যাপূর্বক ক্যাপিটাল মার্কেট স্ট্যাবিলাইজেশন ফান্ডে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহের অদাবিকৃত তহবিল স্থানান্তরের এবং পুঞ্জীভূত লোকসান বিদ্যমান থাকলেও সংশ্লিষ্ট বছরের মুনাফা থেকে নগদ লভ্যাংশ বিতরণের বিষয়টি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে আইনসম্মত নয় বলে বিএসইসি প্রতিনিধিদলকে অবহিত করা হয়। এ ছাড়া সভায় শেয়ারবাজারে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের বিনিয়োগসংক্রান্ত বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। তবে এসব বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়নি।

শেয়ারবাজার থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন