default-image

এ বছর শুধু কর অঞ্চল ৬–এর করদাতারা অনলাইনে বার্ষিক আয়কর বিবরণী বা রিটার্ন জমা দিতে পারবেন। শেষ মুহূর্তে এসে কেবল এই কর অঞ্চলের করদাতাদের জন্য অনলাইনে রিটার্ন দেওয়ার পরীক্ষামূলক সুযোগটি তৈরি করা হয়েছে। অবশ্য এ জন্য ওই কর অঞ্চলের করদাতাদের অনলাইনে নিবন্ধন নিয়ে তারপর রিটার্ন দাখিল করতে হবে। রিটার্ন দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে প্রাপ্তিস্বীকারপত্র পাবেন করদাতারা। ওয়েবসাইটের ঠিকানা হলো https://taxeszone6.gov.bd।

গতকাল রোববার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম অনলাইনে রিটার্ন দেওয়ার এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

বিজ্ঞাপন

চার বছর আগে করদাতাদের জন্য অনলাইনে রিটার্ন দেওয়ার সুযোগ চালু করা হয়েছিল। ২০১৬ সালের নভেম্বর মাসে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন তৎকালীন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। কিন্তু ব্যবস্থাটি করদাতাবান্ধব করা যায়নি। করদাতারাও অনলাইনে রিটার্ন দেওয়ায় তেমন উৎসাহ দেখাননি। গত চার বছরে প্রতিবছর গড়ে মাত্র ছয় হাজার করদাতা অনলাইনে রিটার্ন জমা দিয়েছেন। অথচ প্রতিবছর সব মিলিয়ে ২০-২২ লাখ করদাতা রিটার্ন দেন।

কর বিভাগের স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থা চালুর জন্য ২০১১–২০১৮ সাল মেয়াদে নেওয়া স্ট্রেনদেনিং গভর্ন্যান্স ম্যানেজমেন্ট প্রকল্পের আওতায় অনলাইনে রিটার্ন দেওয়ার ব্যবস্থা চালু করা হয়। ভিয়েতনামের এফটিপি এই সিস্টেম বা সফটওয়্যার তৈরির কাজ পায়। কাজটি শেষ করে তা এনবিআরের কর্মকর্তাদের বুঝিয়ে না দেওয়ায় এ বছর থেকে অনলাইনে রিটার্ন দেওয়া বন্ধ হয়ে যায়। অথচ করোনার সময় অনলাইনে রিটার্ন দেওয়ার ব্যবস্থাটি বেশি দরকার।

মন্তব্য পড়ুন 0