চলতি বছরের জন্য বাণিজ্য প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস কমিয়েছে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা (ডব্লিউটিও)। সংস্থাটি বলছে, চলতি বছর বিশ্ব বাণিজ্য প্রবৃদ্ধি ১ দশমিক ২ শতাংশ হতে পারে। এর আগে গত এপ্রিলে সংস্থাটি এই প্রবৃদ্ধি ২ দশমিক ৬ শতাংশ হবে বলে জানিয়েছিল। তবে ছয় মাস ধরে পরিস্থিতি বিবেচনা করে তা এবার অর্ধেকে কমিয়ে আনা হলো। গতকাল মঙ্গলবার ডব্লিউটিও তাদের ওয়েবসাইটে এ বিষয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

ডব্লিউটিও বিশ্ব অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি পূর্বাভাসও কমিয়েছে। এ বছর বিশ্ব অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ২ দশমিক ৩ শতাংশ হবে বলে মনে করছে সংস্থাটি, যা এর আগে ২ দশমিক ৬ শতাংশ হবে বলে আশা করা হচ্ছিল। এ ছাড়া ২০২০ সালের প্রবৃদ্ধি পূর্বাভাস ৩ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২ দশমিক ৭ শতাংশ করেছে সংস্থাটি।

সংস্থাটি বলছে, বড় বড় অর্থনীতির দেশগুলোর মন্থর প্রবৃদ্ধি, বাণিজ্যযুদ্ধ ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে যুক্তরাজ্যের বিচ্ছেদ (ব্রেক্সিট) নিয়ে বিশ্ব অর্থনীতিতে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। যার প্রভাব পড়বে প্রবৃদ্ধিতে।

২০১৯ সালের প্রথম ছয় মাসে বিশ্ব পণ্য বাণিজ্যে মাত্র শূন্য দশমিক ৬ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে, যা অন্য সময়ের চেয়ে অনেক কম প্রবৃদ্ধি। এ ছাড়া চলতি বছরের প্রথমার্ধে সারা বিশ্বেরই আমদানি–রপ্তানির প্রবৃদ্ধি কমেছে।

ডব্লিউটিওর মহাপরিচালক রবার্তো আজেভিদো বলেন, ব্যবসার অনিশ্চয়তার মাঝে বিনিয়োগ পিছিয়ে যাচ্ছে। ফলে প্রবৃদ্ধি হ্রাস পাচ্ছে। জীবনযাত্রার মান আরও ঝুঁকির মধ্যে পড়ছে। বাণিজ্যের এই পূর্বাভাস নিরুৎসাহজনক হলেও অপ্রত্যাশিত নয়। বাণিজ্য মতবিরোধের সমাধান হলে ডব্লিউটিওর সদস্যদেশগুলো এ–জাতীয় ব্যয় এড়াতে পারবে।

ডব্লিউটিও বলছে, ২০২০ সালে বাণিজ্য প্রবৃদ্ধি বেড়ে ২ দশমিক ৭ শতাংশ হবে বলে আশা করছে তারা। তবে সংস্থাটি এ–ও বলেছে যে এই বিষয়টি স্বাভাবিক বাণিজ্য সম্পর্ক ফিরে আসার ওপর অনেকাংশে নির্ভর করছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0