বিজ্ঞাপন
মহামারিতে লাখ লাখ জীবন ও চাকরি গেছে। তার থাবা থেকে অর্থনীতির বেরোনোর রাস্তাটা কঠিনই হবে, এমনকি পেছানোর ঝুঁকিও আছে। অনেক সমস্যা রয়ে গেছে, যার একটি করোনার নতুন ঢেউ রুখতে আরও কড়াভাবে সব বন্ধ করা।
আইএমএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্রিস্টালিনা জর্জিয়েভা

সম্প্রতি আইএমএফ পূর্বাভাসে বলেছে, এ বছর বিশ্ব অর্থনীতি ৪ দশমিক ৪ শতাংশ সংকুচিত হতে পারে। ক্রিস্টালিনা বলেন, মহামারিতে লাখ লাখ জীবন ও চাকরি গেছে। তার থাবা থেকে অর্থনীতির বেরোনোর রাস্তাটা কঠিনই হবে, এমনকি পেছানোর ঝুঁকিও আছে। অনেক সমস্যা রয়ে গেছে, যার একটি করোনার নতুন ঢেউ রুখতে আরও কড়াভাবে সব বন্ধ করা। তাঁর কথায়, ‘এর মানে প্রবৃদ্ধি আরও তলিয়ে যাবে, বাড়বে ঋণ। দীর্ঘ মেয়াদে অর্থনীতির ক্ষত হবে দগদগে।’ সব দেশের হাতে হাত মিলিয়ে কাজ করার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

জি-২০-এর বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, জার্মানি, ফ্রান্সের মতো প্রতিষ্ঠিত শক্তি ছাড়া চীন ও ভারতের মতো উদীয়মান দেশগুলোও অন্তর্ভুক্ত।

বিশ্ববাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন