default-image

যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে নতুন স্নায়ুযুদ্ধ বাধানোর পাঁয়তারা করছে যুক্তরাষ্ট্র। বিশ্বের বৃহৎ দুই অর্থনীতির মধ্যে এই দ্বন্দ্ব সৃষ্টির প্রচেষ্টা বিশ্বের মধ্যে বিভাজন ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করবে। এমনটাই মনে করছে চীন। সম্প্রতি গণমাধ্যমে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই বলেন, ‘আজকের চীন সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়ন নয়।’ তিনি বলেন, ‘আরেকটি যুক্তরাষ্ট্রের মতো হওয়ার কোনো ইচ্ছে নেই চীনের।’

ওয়াং ই বলেন, ‘আমাদের আর একটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র হওয়ার কোনো ইচ্ছা নেই। চীন আদর্শ রপ্তানি করে না এবং অন্য দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে কখনো হস্তক্ষেপ করে না।’

চীনের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম সিনহুয়াতে ওয়াং ইর সাক্ষাৎকারটি প্রকাশিত হয়েছে। সাক্ষাৎকারে মার্কিন-চীন সম্পর্কের বিভিন্ন সাম্প্রতিক বিষয় অন্তর্ভুক্ত করা হয়। এর মধ্যে আধা-স্বায়ত্তশাসিত চীনা অঞ্চল হংকং, চীনা প্রযুক্তি সংস্থা হুয়াওয়ে এবং বিতর্কিত দক্ষিণ চীন সমুদ্র নিয়েও আলোচনা হয়।

কিছুদিন ধরেই মার্কিন কর্মকর্তারা সতর্ক করছেন, চীন বিশ্বের প্রভাবশালী শক্তি হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের জায়গা নিতে চায়। পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এবং জাতীয় সুরক্ষার উপদেষ্টা রবার্ট ও’ব্রায়েনের মতো মানুষের মুখেও এমন মন্তব্য শোনা গেছে। তবে বরাবরই চীন এ অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে। ওয়াং বলেন, দুই দেশের সম্পর্ক গুরুতর চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হচ্ছে। এই অবনতির জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করেন তিনি। ওয়াং বলেন, কিছু মার্কিন রাজনীতিবিদ যাঁরা চীনের বিরুদ্ধে পক্ষপাতদুষ্ট এবং শত্রুতা পোষণ করেছেন, তাঁরা তাঁদের শক্তি ব্যবহার করে চীনকে মিথ্যাবাদী বানানোর জন্য এবং বিভিন্ন অজুহাতে চীনের সঙ্গে স্বাভাবিক সম্পর্ককে বাধাগ্রস্ত করছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0