বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

চলতি সপ্তাহে তিনবার বেজোসকে পেছনে ফেলেন বারনার্ড আরনল্ট। গত সোমবার সকালে বিশ্বের শীর্ষ ধনী হিসেবে সপ্তাহ শুরু করেন আরনল্ট। পুঁজিবাজারে তাঁর কোম্পানি লুই ভুটন মোয়েত হেনেসির (এলভিএমএইচ) শেয়ারের দর এতটায় বাড়ে যে শীর্ষ ধনী বেজোসকে পেছনে ফেলে এগিয়ে যান তিনি। ‘ফোর্বস’–এর রিয়েল টাইম বিলিয়নিয়ারের তালিকা অনুযায়ী ৭২ বছর বয়সী এলভিএমএইচের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহীর সম্পদের পরিমাণ ওই দিন ১৮ হাজার ৬৩০ কোটি ডলার হয়, যা ই-কমার্স জায়ান্ট আমাজনের প্রতিষ্ঠাতা জেফ বেজোসের চেয়ে ৩০ কোটি ডলার বেশি। পরে অবশ্য আবার এগিয়ে যান জেফ বেজোস।

একই ঘটনা ঘটে পরদিন মঙ্গলবার। ওই দিনই শীর্ষ ধনী হিসেবে সূচনা করেন আরনল্ট। তবে পরে আবার বেজোস এগিয়ে যান। তবে গতকাল বৃহস্পতিবার দিন শেষে আরনল্টই শীর্ষ ধনীর অবস্থানে থাকেন।

‘ফোর্বস’–এর তথ্য অনুযায়ী, ২০২০ সালের মার্চে আরনল্টের সম্পদের পরিমাণ ছিল ৭ হাজার ৬০০ কোটি ডলার, যা সোমবারে প্রথম বেড়ে হয় ১৮ হাজার ৬৩০ কোটি ডলার। অর্থাৎ ১৪ মাসে ১১ হাজার কোটি ডলার সম্পদ বেড়েছে তাঁর। আবার গতকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত তা আরও বেড়েছে। এলভিএমএইচের সঙ্গে ফেন্ডি, ক্রিশ্চিয়ান ডায়ার এবং গিভেঞ্চির মতো অন্যান্য বড় বড় ফ্যাশন ব্র্যান্ডও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

গত মাসে প্রথম প্রান্তিকের বিক্রয় প্রবৃদ্ধির কথা জানায় এলভিএমএইচ, যা বিশ্লেষকদের প্রত্যাশার চেয়ে অনেক বেশি ছিল। চীনসহ এশিয়ার দেশগুলোতে তার পণ্যের চাহিদা ছিল ব্যাপক। শুধু ক্রিশ্চিয়ান ডায়ারের শেয়ারের দর এ বছর ২০ শতাংশের বেশি বেড়েছে, যা আরনল্টকে প্রথমে বিশ্বের দ্বিতীয় ধনী ব্যক্তি হিসেবে ইলন মাস্ককে ছাড়িয়ে যেতে সহায়তা করেছে। এখন তিনি এগিয়ে যাচ্ছে শীর্ষ অবস্থানের দিকে।

বিশ্ববাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন