default-image

যুক্তরাজ্যে কর্মহীন মানুষের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) দেশটিতে বেকারত্বের হার দাঁড়িয়েছে ৪ দশমিক ৮ শতাংশ। এর আগে জুন, জুলাই ও আগস্ট—এই তিন মাসে দেশটিতে বেকারত্বের হার ছিল ৪ দশমিক ৫ শতাংশ। আজ মঙ্গলবার যুক্তরাজ্যের জাতীয় পরিসংখ্যান অফিস এই তথ্য জানিয়েছে বলে বিবিসি অনলাইনের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়।

কাজের বাইরে থাকা মানুষের সংখ্যা তিন মাসের ব্যবধানে ২ লাখ ৪৩ হাজার বেড়েছে, যা ২০০৯ সালের মে মাসের পর থেকে সবচেয়ে বেশি বৃদ্ধি। সবচেয়ে বেশি কর্মহীন হয়েছেন ১৬ থেকে ২৪ বছর বয়সী মানুষ। গত তিন মাসে এ বয়সসীমার ১ লাখ ৭৪ হাজার মানুষ বেকার হয়েছে। সরকারি পরিসংখ্যান ব্যুরোর পরিসংখ্যানবিদ জনাথন অ্যাথো বলেছেন, ‘করোনার বড় ঝাঁকুনি এখন শ্রমবাজারে পড়েছে। আমরা কম বেতনভুক্ত ও কাজে নেই এমন মানুষের সংখ্যা বাড়তে দেখছি। যার ফলে বেকারত্বের হার বেড়েছে।’

বিজ্ঞাপন

করোনার কোপে শুরু থেকেই বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে যুক্তরাজ্য। একটানা বেড়ে চলেছেই বেকারত্বের হার। প্রথম প্রান্তিকে বেকারত্বের হার ছিল ৩ দশমিক ৯ শতাংশ।
চাকরি ধরে রাখার জন্য সরকারের ফারলো প্রকল্পের আওতায় এখনো রয়েছে প্রায় ২৫ লাখ মানুষ। পরবর্তী সময়ে কী হবে, এই নিয়ে ব্যাপক অনিশ্চয়তায় রয়েছে এই জনগোষ্ঠী।

করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় গত ১ নভেম্বর থেকে দ্বিতীয়বারের মতো দেশজুড়ে লকডাউনের ঘোষণা দিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। লকডাউনে পাব, রেস্তোরাঁ, জিম ও অপ্রয়োজনীয় দোকানপাট রাখা হয়েছে। আগামী ২ ডিসেম্বরের পর এসব কড়াকড়ি শিথিল করা হতে পারে।

মন্তব্য পড়ুন 0