default-image

জীবাশ্ম জ্বালানিনির্ভর গাড়ি থেকে বৈদ্যুতিক গাড়ির দিকে ঝুঁকছে জার্মান গাড়ি কোম্পানি মার্সিডিজ বেঞ্জ। কিন্তু এই প্রক্রিয়ার তহবিল জোগাতে কোম্পানিটি ১০ হাজার কর্মী ছাঁটাই করবে। কোম্পানির মানবসম্পদ বিভাগের প্রধান উইলফ্রিড পোর্থও সাংবাদিকদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বিবিসি সূত্রে এ খবর পাওয়া গেছে।

কিছুদিন আগেই আরেক জার্মান গাড়ি কোম্পানি অডি জার্মানিতে তাদের ৬১ হাজার কর্মীর মধ্যে সাড়ে নয় হাজার কর্মী ছাঁটাইয়ের ঘোষণা দেয়। মার্সিডিজ বেঞ্জের মূল কোম্পানি ডাইমলার বলেছে, গাড়িশিল্প এখন ইতিহাসের সবচেয়ে বড় পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। তারা আরও বলেছে, কার্বন নিঃসরণবিহীন গাড়ি বানাতে বিপুল বিনিয়োগ দরকার। সে জন্য নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে ডাইমলার ঘোষণা দেয়, তারা প্রতিযোগিতা সক্ষমতা, উদ্ভাবন ও বিনিয়োগ সক্ষমতা বাড়াতে কর্মসূচি প্রণয়ন করবে।

এ প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে তারা কর্মী ছাঁটাই করে বিনিয়োগ সক্ষমতা বাড়াবে। ২০২২ সালের শেষ নাগাদ তারা এ প্রক্রিয়ায় ১৪০ কোটি ইউরো বাঁচাতে চায়। সারা পৃথিবীতেই এই কর্মী ছাঁটাই করবে তারা। মূলত, ব্যবস্থাপনা পদে ১০ শতাংশ কর্মী ছাঁটাই করবে তারা।

বিশ্বজুড়ে ১৭টি দেশে ডাইমলারের তিন লাখ কর্মী আছে। তারা বলেছে, সামাজিকভাবে গ্রহণযোগ্য পদ্ধতিতে তারা এই ছাঁটাইপ্রক্রিয়া সম্পন্ন করবে। পাশাপাশি প্রশাসনিক কর্মী কমাতে তারা সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দিয়ে খণ্ডকালীন কর্মীদের অবসরে যাওয়ার সুযোগ দেবে।

কোম্পানির ওয়ার্ক কাউন্সিল এই ছাঁটাইয়ের ব্যাপারে একমত হয়েছে। এই কাউন্সিলে শ্রমিক ইউনিয়নের প্রতিনিধিত্বও আছে। জার্মান গাড়ি কোম্পানিগুলো অন্যদের মতো অতটা দ্রুতগতিতে নতুন প্রযুক্তি গ্রহণ করতে পারে না, বিশেষ করে চালকবিহীন ও বৈদ্যুতিক গাড়ি প্রযুক্তি গ্রহণের বেলায় তারা পিছিয়ে আছে।

চীন ও ভারতের বাজারে গাড়ির চাহিদা কমে যাওয়ায় বৈশ্বিক গাড়ির বাজারেই এখন একরকম মন্দা চলছে। ওয়াশিংটন ও বেইজিংয়ের বাণিজ্যযুদ্ধের কারণেও বাজারের চাহিদা কমে যাচ্ছে। তার সঙ্গে আবার বৈদ্যুতিক গাড়ি তৈরির দিকে যেতে হচ্ছে গাড়ি কোম্পানিগুলোকে। সব মিলিয়ে গাড়ির বাজার মন্দা।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0