default-image

নতুন করে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের নিয়ম তৈরি করতে অন্য গণতন্ত্রগুলোর সঙ্গে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। তিনি বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নীতি থেকে সরে আসার স্পষ্ট ইঙ্গিত দিয়েছেন। ট্রাম্প বহুপক্ষীয় চুক্তি থেকে বেরিয়ে এসে চীনের সঙ্গে উত্তেজনা বাড়িয়েছিলেন।
গত রোববার আসিয়ানসহ জাপান, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডকে নিয়ে নতুন বাণিজ্য চুক্তি করেছে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতি চীন। আর এতেই নড়েচড়ে বসেছেন নতুন নির্বাচিতরা। এক দিন পরই প্রতিশ্রুতি নিয়ে এগিয়ে এলেন বাইডেন।

বিবিসি অনলাইনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, রিজিয়নাল কম্প্রিহেনশন ইকোনমিক পার্টনারশিপ (আরসিইপি) বা ‘আঞ্চলিক সমন্বিত অর্থনৈতিক অংশীদারি’ শীর্ষক এই বাণিজ্য চুক্তির ভৌগোলিক ও অর্থনৈতিক পরিসর চমকে দেওয়ার মতোই—বিশ্বের এক-তৃতীয়াংশ জনসংখ্যা ও ২৯ শতাংশ জিডিপি। চুক্তির আওতা খুব বড় না হলেও গুরুত্বের দিক থেকে এটি অনেক বড়। যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো-কানাডা চুক্তি বা ইউরোপীয় ইউনিয়নের চেয়েও এটি বড়। ফলে এটি হবে বিশ্বের বৃহত্তম মুক্ত বাণিজ্য অঞ্চল।

বিজ্ঞাপন

বাইডেন বলেন, ‘আমরা বিশ্বের অর্থনীতির ব্যবসায় সক্ষমতার ২৫ শতাংশ তৈরি করি। আমাদের অন্যান্য গণতন্ত্রের সঙ্গে আরও ২৫ শতাংশ বা তারও বেশি সংযুক্ত হতে হবে, যাতে আমরা পথচলার নতুন নিয়ম তৈরি করতে পারি।’ অবশ্য আরসিইপি বা ট্রান্স প্যাসিফিক পার্টনারশিপে (টিপিপি) স্বাক্ষর করার বিষয়ে বিবেচনা করবেন কি না, তা নিয়ে কিছু বলেননি বাইডেন।

নির্বাচনী প্রচারের সময় ট্রাম্পের এক বক্তব্যের স্পষ্ট জবাবে বাইডেন ইঙ্গিত দিয়েছিলেন যে তাঁর প্রশাসনের বৈদেশিক ও বাণিজ্যনীতি তাঁর পূর্বসূরির চেয়ে আলাদা হবে। তিনি বলেন, ‘আমি শাস্তিমূলক বাণিজ্য খুঁজছি না। আমরা আমাদের বন্ধুদের চোখে আঙুল তুলছি আবার স্বৈরশাসকদের আলিঙ্গন করছি, এই ধারণা আমার কাছে কোনো অর্থ বহন করে না।’ ওবামা প্রশাসন–সমর্থিত টিপিপি চুক্তি থেকে সরে এসেছিলেন ট্রাম্প। তিনি চীন থেকে আমদানির ওপর শুল্ক আরোপ করেন। সেই সঙ্গে জাতীয় সুরক্ষার বিষয় এনে হুয়াওয়েসহ বেশ কয়েকটি চীনা প্রযুক্তি সংস্থার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন।

বিভিন্ন চুক্তিতে যুক্তরাষ্ট্রের যোগ দেওয়ার বিষয়ে বাইডেন কিছু না বললেও, আন্তর্জাতিক বাণিজ্য চুক্তিতে যুক্তরাষ্ট্রের যুক্ত থাকার বিষয়ে কিছু শর্তের কথা উল্লেখ করেছেন তিনি। তিনি বলেন, ‘আমরা মার্কিন কর্মীর ওপর বিনিয়োগ করে তাদের আরও প্রতিযোগিতামূলক করতে যাচ্ছি।’

মন্তব্য পড়ুন 0