default-image

চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং বলেছেন, চীন যতই শক্তিশালী হয়ে উঠুক না কেন, কখনোই আধিপত্য কামনা করবে না। বিশ্বব্যাপী আরও ‘সুষ্ঠু ও ন্যায়সংগত’ শাসনের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। আজ মঙ্গলবার চীনের হাইনান প্রদেশে বোয়াও ফোরাম ফর এশিয়ার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। মার্কিন গণমাধ্যম সিএনবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে আসে।

বেশ কয়েক বছর ধরেই মানবাধিকার, অন্যায্য বাণিজ্য পদ্ধতিসহ নানা ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্র, এশিয়া এবং ইউরোপের দেশসহ নানা অঞ্চলের সঙ্গে বাণিজ্য সংঘাতে রয়েছে চীন। এই দেশগুলোর উদ্বেগ যে চীনের ক্রমবর্ধমান রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক প্রভাব বৈশ্বিক শৃঙ্খলাকে হুমকির মুখে ফেলছে।

সি চিন পিং বলেন, শক্তিশালী হলেও চীন কখনোই আধিপত্য, সম্প্রসারণ বা প্রভাবের ক্ষেত্র চাইবে না, চীন কখনো অস্ত্রের লড়াইয়ে অংশ নেবে না। বরাবরই এমন দাবি করছিলেন সি। আজকের সম্মেলনে সেই সুরেই কথা বলেছেন চীনের প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেন, চীন বিশ্বায়ন ও বহু পাক্ষিক বাণিজ্যব্যবস্থায় সেরা। আন্তর্জাতিক বিধিগুলো কেবল একটি বা কয়েকটি দেশ দ্বারা নির্ধারণ করা উচিত নয়।

বিজ্ঞাপন

কোনো দেশের নাম উল্লেখ না করে সি বলেন, বড় দেশগুলোর আরও দায়বদ্ধতার সঙ্গে এমন আচরণ করা উচিত, যা তাদের মর্যাদাকে যথাযথভাবে উপস্থাপন করে। তিনি স্নায়ুযুদ্ধ ও আদর্শিক সংঘাতের বিরুদ্ধেও কথা বলেন। তিনি বলেন, অন্যের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপকারী কোনো দেশই সমর্থন পাবে না।

কিছুদিন ধরেই যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জাপানসহ অনেক দেশ চীনের বিরুদ্ধে গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ এনেছে। দেশগুলো চীনের বিশেষ প্রশাসনিক অঞ্চল হংকংয়ের স্বায়ত্তশাসনের বিরুদ্ধেও সরব। অন্যদিকে বেইজিং ওয়াশিংটনের বিরুদ্ধে অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপের অভিযোগ করেছে।

গত মাসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, চীন শীর্ষস্থানীয় দেশ, বিশ্বের ধনী দেশ এবং বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী দেশ হয়ে ওঠার সামগ্রিক লক্ষ্য নিয়েছে। তবে তাঁর নজরদারির অধীনে এটি তিনি হতে দেবেন না। মার্কিন প্রেসিডেন্টের ওই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতেই সি চিন পিং জানান, আধিপত্য কামনা করে না চীন।

বিশ্ববাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন