গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে যুক্তরাজ্য সরকারের একজন মুখপাত্রের বরাতে বলা হয়েছে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম প্রতিষ্ঠানগুলোকে অবশ্যই আসন্ন ‘অনলাইন সুরক্ষা বিল’ মেনে চলতে হবে। এ বিল সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারী ব্যক্তিদের ক্ষতিকর কনটেন্টের হাত থেকে রক্ষা করবে। যদি কোনো প্রতিষ্ঠান এ বিল বা নীতি মেনে না চলে, তবে তাদের বড় ধরনের আর্থিক জরিমানা বা নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়তে হবে।

যুক্তরাজ্য সরকারের ওই মুখপাত্র গার্ডিয়ানকে বলেছেন, টুইটারসহ সব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোকে অবশ্যই তাদের ক্ষতিকর কনটেন্ট থেকে ব্যবহারকারী ব্যক্তিদের সুরক্ষা দিতে হবে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ক্ষতিকর কনটেন্ট থেকে শিশুদের সুরক্ষা, যেকোনো আপত্তিকর আচরণ প্রতিরোধ ও বাক্স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে নতুন অনলাইন আইন করা হচ্ছে। যেসব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যুক্তরাজ্যের ব্যবহারকারী রয়েছেন, তাঁদের সবাইকে এ আইন মেনে চলতেই হবে।

ইইউর অভ্যন্তরীণ বাজারসংক্রান্ত বিষয়ের কমিশনার থিয়েরি ব্রেটন গার্ডিয়ানকে বলেন, ‘গাড়ি হোক বা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম, ইউরোপে কাজ করছে এমন যেকোনো কোম্পানিকে আমাদের নিয়মনীতি মেনে চলতে হবে। টেসলার প্রধান ইলন মাস্ক তা ভালোভাবেই জানেন। ইলন ইউরোপীয় নিয়মনীতির সঙ্গে পরিচিত। তাই আমরা আশা করি, তিনি (ইলন) দ্রুত ডিজিটাল পরিষেবা আইনের সঙ্গেও খাপ-খাইয়ে নেবেন।’

থিয়েরি ব্রেটন সবাইকে সতর্ক করে আরও বলেন, ২০২৪ সাল থেকে নতুন ডিজিটাল পরিষেবা আইনটি কার্যকর হবে বলে আশা করছি। যদি কোনো কোম্পানি এ আইন লঙ্ঘন করে তবে ওই কোম্পানিকে বৈশ্বিক লেনদেনের ছয় শতাংশ পর্যন্ত জরিমানার মুখে পড়তে হতে পারে। এমনকি একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটলে সে ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়ার শঙ্কা রয়েছে।

বিশ্ববাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন