বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আজ বিকেল পৌনে চারটায় দ্য রয়াল সুইডিশ একাডেমি অব ইকোনমিক সায়েন্সের সভাপতি পিটার ফ্রেডরিকসন ঘোষণা করবেন অর্থনীতিতে পুরস্কার বিজয়ীর নাম।
নাম ঘোষণার আগে বার্তা সংস্থা এএফপির নেওয়া সাক্ষাৎকারে উঠে এসেছে যে বিশেষজ্ঞরা এবার সামষ্টিক অর্থনীতি, স্বাস্থ্য ও শ্রমবাজার নিয়ে যাঁরা কাজ করেছেন, তাঁরা এগিয়ে আছেন বলেই মনে করছেন। এবারের নোবেল মৌসুমে এখন পর্যন্ত একজন নারী নোবেল পেয়েছেন। তিনি হলেন ফিলিপাইনের সাংবাদিক মারিয়া রেসা। শান্তিতে নোবেল পেয়েছেন তিনি।

অর্থনীতিতে নোবেলের জন্য মনোনীত প্রার্থীর মধ্যে যে নারীদের নাম এবারের তালিকায় আছে, তাঁদের মধ্যে প্রথমেই আছেন মার্কিন নাগরিক অ্যান ক্রুগার। আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও বিশ্বব্যাংকের অর্থনীতি ও গবেষণা বিভাগের সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট অ্যান ক্রুগার। স্টকহোম স্কুল অব ইকোনমিকসের মার্কেটিংয়ের অধ্যাপক মাইকেল ডাহলেন এএফপিকে বলেন, ৮৭ বছর বয়স নোবেল পুরস্কার জেতার ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধক নয়। তিনি প্রার্থীর তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে আছেন।

নোবেল প্রার্থীদের মধ্যে প্রথম তিনজনের মধ্যে আরও একজন নারী আছেন। তিনি হলেন মার্কিন অর্থনীতিবিদ ক্লাউডিয়া গোল্ডিন, যার গবেষণায় বৈষম্য এবং নারী শ্রমশক্তির ওপর মনোযোগ কেন্দ্রীভূত হয়েছে।

অন্য সম্ভাব্য নারী প্রার্থীরা হলেন মার্কিন অর্থনীতিবিদ জ্যানেট কারি, শিশুদের ওপর সরকারের দারিদ্র্যবিরোধী কর্মসূচির প্রভাব নিয়ে কাজের জন্য তিনি পরিচিত। আছেন বেলজিয়ামের শ্রম অর্থনীতিবিদ মারিয়ান বার্ট্রান্ড এবং আমেরিকান মাইক্রোইকোনোমিস্ট সুসান এথে। সুসান এথে ‘জন বেটস ক্লার্ক’ জয়ী প্রথম নারী ছিলেন। ২০০৭ সালে তিনি এ পুরস্কার পান।

এত প্রতিভাবান প্রার্থীর মধ্যে নোবেল কমিটির জন্য বিজয়ী প্রার্থী বেছে নেওয়া আসলেই কঠিন এবার। অর্থনীতির বিভিন্ন ক্ষেত্রে কাজ করা প্রায় ১০০ জন শক্তিশালী প্রার্থী রয়েছেন।

সুইডেনের ব্যবসায়ী আলফ্রেড নোবেলের নামে ও তাঁর রেখে যাওয়া অর্থে ১৯০১ সাল থেকে নোবেল পুরস্কার দেওয়া শুরু হয়। প্রতিবছর চিকিৎসা, পদার্থ, রসায়ন, সাহিত্য, শান্তি ও অর্থনীতি—এ ছয় শাখায় নোবেল দেওয়া হয়। তবে অর্থনীতিতে নোবেল প্রচলন শুরু হয় ১৯৬৯ সাল থেকে।

বিশ্ববাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন