default-image

বিশ্বের সব শীর্ষ ধনীকে টেক্কা মারলেন ভারতের আদানি গোষ্ঠীর চেয়ারম্যান গৌতম আদানি। চলতি বছরে জেফ বেজোস, ইলন মাস্ক, মুকেশ আম্বানিদের ছাপিয়ে সবচেয়ে দ্রুতগতিতে সম্পত্তি বাড়িয়েছেন গৌতম। ব্লুমবার্গ বিলিয়নিয়ার ইনডেক্সের তথ্য অনুযায়ী, ২০২১ সালে ১ হাজার ৬২০ কোটি থেকে গৌতম আদানির সম্পত্তির নিট মূল্য বেড়ে হয়েছে ৫ হাজার কোটি ডলার। এই বৃদ্ধিতে সব শীর্ষ ধনীকে টপকে গেছেন তিনি।

১৯৮৮ সালে আদানি গ্রুপ প্রতিষ্ঠা করেন গৌতম আদানি। ক্রমশ তা ভারতের শীর্ষস্থানীয়য় পাওয়ার জেনারেটর ও পোর্ট অপারেটর সংস্থা হয়ে ওঠে। ২০১৯ সালে এই গ্রুপ বিমানবন্দরের ব্যবসায় নামে। বর্তমানে পুঁজিবাজারে আদানি গ্রুপের ছয়টি কোম্পানি তালিকাভুক্ত আছে।

চলতি বছরে কেবল একটি ক্ষেত্র ছাড়া আদানি গোষ্ঠীর সব কটি ব্যবসার শেয়ারের মূল্য ৫০ শতাংশ হারে বেড়েছে। কোনো কোনো ব্যবসায় আদানিদের মুনাফার হার ছাপিয়ে গিয়েছে ৯০ শতাংশও। আদানি টোটাল গ্যাসের শেয়ারের দর প্রায় দ্বিগুণ হয়ে গেছে। আদানি এন্টারপ্রাইজের দর বেড়েছে প্রায় ৯০ শতাংশের বেশি। আদানি ট্রান্সমিশন লিমিটেড ৭৯ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। আদানি পাওয়ার, আদানি পোর্টস এবং বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল লিমিটেডের শেয়ার ৫০ শতাংশেরও বেশি বেড়েছে। কেবল আদানির গ্রিন এনার্জির শেয়ারের দর ১২ শতাংশ বেড়েছে।

এর মাধ্যমে গৌতম আদানির ঝুলিতে যোগ হলো আরও একটি পালক। এ ছাড়া ভারতে বিমানবন্দর, বন্দর এবং অস্ট্রেলিয়ায় একটি কয়লাখনি আদানির অধীনে রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আদানির বিপরীতে ভারতের শীর্ষ ধনী মুকেশ আম্বানি চলতি বছরে তাঁর সম্পত্তি বাড়িয়েছেন ৮১০ কোটি ডলার। অর্থাৎ প্রায় অর্ধেক। বিশ্বের শীর্ষ ধনী ই–কমার্স জায়ান্ট আমাজনের প্রধান জেফ বেজোস ও বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টেসলার প্রধান ইলন মাস্কও আদানির মতো গতিতে সম্পদ বাড়াতে পারেননি।

ব্যবসা বাড়াতে বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রতিনিয়ত সম্প্রসারণ করেছেন গৌতম আদানি। কেবল এই বছরই নয়, প্রথম প্রজন্মের এই উদ্যোক্তা তাঁর সমসাময়িক ভারতীয় শীর্ষ ধনীদেরও ছাড়িয়ে যান গত বছরও। সম্পত্তি গড়ার ক্ষেত্রে গত বছরও মুকেশ আম্বানিকে ছাড়িয়ে গিয়েছিলেন তিনি।

সূত্র: টাইমস নাও নিউজ

বিশ্ববাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন