default-image

লকডাউন শিথিল হওয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের মতো ভারতেও কমেছে বেকারত্বের হার। করোনার কারণে লকডাউন জারি থাকায় কাজ হারিয়ে বেকার হয়ে পড়েন ভারতের অনেক মানুষ। আড়াই মাসের লকডাউনে বেড়ে গিয়েছিল বেকারত্বের হারও। তবে লকডাউন শিথিল হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই পরিস্থিতি পাল্টে যেতে শুরু করেছে। ১৪ জুন শেষ হওয়া সপ্তাহে দেশটিতে বেকারত্বের হার আগের সপ্তাহের তুলনায় কমেছে ১১ দশমিক ৬৩ শতাংশ। গ্রাম ও শহর সব জায়গাতেই কমেছে এই হার।

টাইমস অব ইন্ডিয়া অনলাইনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, এপ্রিল ও মে মাসে দেশটির বেকারত্বের হার ছিল সাড়ে ২৩ শতাংশ করে। জুনের প্রথম সপ্তাহে এসেই এই হার কমে হয় সাড়ে ১৭ শতাংশ। দ্বিতীয় সপ্তাহে আরও কমে দাঁড়ায় ১১ দশমিক ৬ শতাংশ। গত ২২ মার্চ জনতা কারফিউয়ের দিনে বেকারত্বের হার ছিল ৮ দশমিক ৪১ শতাংশ। অবশ্য সাধারণ সময়ের তুলনায় এই হারও বেশ বেশি ছিল। সরকারি হিসাবেই ২০১৭-১৮ সালে বেকারত্বের হার ছিল সাড়ে চার দশকের মধ্যে সর্বোচ্চ। ১৪ জুন পর্যন্ত শ্রমিকের অংশগ্রহণের হার ৪০ দশমিক ৪ শতাংশ, লকডাউনের আগে যা ছিল ৪২ দশমিক ৬ শতাংশ। লকডাউন শুরুর এক সপ্তাহের মধ্যে এই হার হয় ৩৯ দশমিক ২ শতাংশ। পরে তা একপর্যায়ে এপ্রিলে ৩৫ দশমিক ৪ শতাংশে নেমে আসে। তবে মে মাস থেকে আবার তা একটু একটু করে বাড়তে থাকে। বিশ্লেষকেরা এটি আশাব্যঞ্জক বলেই মনে করছেন।

বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সিএসআইইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মহেশ ভায়াস বলেন, মে মাসে বেশ ভালো একটা পুনরুদ্ধার দেখা গেছে। বেকারত্বের হার কমা ও শ্রমিকের অংশগ্রহণ বৃদ্ধি মানে কর্মসংস্থানের হার বৃদ্ধি, যা প্রত্যাশিত ফল।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0