default-image

ভুল করে মৃৃত মানুষদের কাছে মহামারি উদ্ধার তহবিলের ১৪০ কোটি ডলার পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থ বিভাগ। সরকারি পরিদর্শকেরা এই তথ্য পেয়েছেন। বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

করোনা সহায়তার সরকারি পর্যালোচনায় উন্মোচিত বেশ কয়েকটি 'চ্যালেঞ্জের' মধ্যে এটি একটি। মার্চের পর থেকে ভাইরাসের কবল থেকে রক্ষা করতে মার্কিন অর্থনীতিতে প্রায় ২ দশমিক ৬ ট্রিলিয়ন ডলার ঢেলেছে কংগ্রেস। তবে অর্থ পৌঁছে দেওয়ার তাড়াহুড়োয় অনেক ত্রুটি বের হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পরিদর্শকেরা।

যেমন সরকারি জবাবদিহি অফিসের (জিএও) এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অর্থ বিভাগ মার্কিন পরিবারগুলোতে এই প্রণোদনা চিঠি পাঠানোর দায়িত্বে ছিল। তবে তারা এ কাজ করার সময় মৃত্যুর রেকর্ড যাচাই করেনি। এমনকি কর্মসূচিতে কর্মরত কিছু কর কর্মকর্তা ভুল ঠিকানার ঝুঁকি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করার পরও ব্যবস্থা নেয়নি তারা। প্রতিবেদনে হুঁশিয়ারিও দেওয়া হয়েছিল যে ছোট ব্যবসার জন্য পে–চেক প্রোটেকশন প্রোগ্রামে (পিপিপি) উল্লেখযোগ্য ঝুঁকিতে আছে।

করোনাভাইরাস থেকে অর্থনীতিকে রক্ষায় অতিরিক্ত সহায়তার প্রয়োজন আছে কি না, তা নিয়ে এখন আলোচনা করছেন ওয়াশিংটনের আইনপ্রণেতারা। তাই এই প্রতিবেদনটি সামনে উঠে এসেছে। মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রধানসহ ডেমোক্রেটস নেতারা এবং অনেক অর্থনীতিবিদ উচ্চ বেকারত্বের দিকে ইঙ্গিত করে আরও প্রণোদনার প্রস্তাব দিয়েছেন। তবে রিপাবলিকান নেতারা আরও অর্থ অনুমোদনে বিষয়ে দ্বিধায় রয়েছেন। রিপাবলিকান সিনেটর প্যাট টুমি সাম্প্রতিক এক শুনানিতে বলেন, 'আমাদের এগিয়ে যাওয়ার আগে কী প্রয়োজন, তা মূল্যায়নে খুব সতর্ক হওয়া উচিত।'

মার্চে করোনা মহামারির জন্য ২ দশমিক ৬ ট্রিলিয়ন ডলারের পুনরুদ্ধার প্যাকেজ অনুমোদন দেয় কংগ্রেস। যা যুক্তরাষ্ট্রের মোট উতপাদনের ১৪ শতাংশ।এর মধ্যে ১১ শতাংশ অর্থাত প্রায় ২৮ হাজার কোটি ডলার সরাসরি যাদের আয় ৭৫ হাজার ডলারের নিচে তাদের কাছে ১২০০ ডলার করে এবং শিশুদের জন্য ৫০০ ডলার করে বিতরণের পরিকল্পনা করা হয়।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0