বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধের কারণে বৈদেশিক মুদ্রার অধিকাংশ রিজার্ভ আটকে থাকায় সেটি করতে পারছিল না দেশটি। এ রকম অবস্থায় রাশিয়া নিজস্ব মুদ্রা রুবলের মাধ্যমে সেই বন্ডগুলোর অর্থ পরিশোধের প্রস্তাব দেয়। কিন্তু বন্ড প্রদানকারী সংস্থাগুলো ওই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে।

যুক্তরাষ্ট্রের এক কর্মকর্তা বিবিসিকে জানান, রাশিয়া স্থগিত হয়ে যাওয়া অর্থ থেকে বন্ডের অর্থ পরিশোধ করতে পারেনি। অন্যভাবে এই অর্থ পরিশোধ করেছে।
চলতি মাসের শুরুতে দুটি বন্ডের ঋণের টাকা পরিশোধের কথা ছিল রাশিয়ার। কিন্তু ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধের কারণে বৈদেশিক মুদ্রার অধিকাংশ রিজার্ভ আটকে থাকায় সেটি করতে পারছিল না দেশটি। এ রকম অবস্থায় রাশিয়া নিজস্ব মুদ্রা রুবলের মাধ্যমে সেই বন্ডগুলোর অর্থ পরিশোধের প্রস্তাব দেয়। কিন্তু বন্ড প্রদানকারী সংস্থাগুলো ওই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে।

ডলারের মাধ্যমে বন্ডের অর্থ প্রদানে প্রাথমিক ব্যর্থতার পরে রাশিয়া ৩০ দিনের একটি গ্রেস পিরিয়ডের মধ্যে ছিল, যা ৪ মে শেষ হওয়ার কথা।

ডলারের মাধ্যমে বন্ডের অর্থ প্রদানে প্রাথমিক ব্যর্থতার পরে রাশিয়া ৩০ দিনের একটি গ্রেস পিরিয়ডের মধ্যে ছিল, যা ৪ মে শেষ হওয়ার কথা। নির্ধারিত এই সময়ের মধ্যে অর্থ পরিশোধ করতে না পারলে রাশিয়া চূড়ান্তভাবে ঋণখেলাপি দেশে পরিণত হয়ে যেত। আর একবার খেলাপি হলে পরবর্তী সময়ে নতুন ঋণ পেতে ও অর্থনৈতিক লেনদেনে সমস্যায় পড়ত দেশটি। কিন্তু সেই পরিস্থিতিতে যাওয়ার আগেই ডলারের মাধ্যমে ঋণ পরিশোধ করল রাশিয়া।

তবে দুটি বন্ডের বিপরীতে নেওয়া ঋণ পরিশোধেই ঝুঁকি শেষ হবে না রাশিয়ার। কারণ, রাশিয়াকে প্রায় ৪ হাজার কোটি মার্কিন ডলারের আন্তর্জাতিক বন্ডের অর্থ প্রদান করতে হবে।
তবে অর্থনীতিকে চাঙা করার জন্য বিভিন্ন উদ্যোগ নিচ্ছে রাশিয়া। ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধ শুরুর পরে সুদের হার বাড়িয়েছিল রাশিয়া। তবে অর্থনীতিকে ফের চাঙা করতে গত শুক্রবার সুদের হার ৩ শতাংশ কমিয়েছে দেশটি।

বিশ্ববাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন