বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

শীর্ষ ধনীর কাতারে সবার ওপরে আছেন টেসলার প্রধান নির্বাহী ইলন মাস্ক। এ বছর তাঁর সম্পত্তির মূল্য বেড়েছে ১২১ বিলিয়ন বা ১২ হাজার ১০০ কোটি ডলার। সব মিলিয়ে এখন তাঁর সম্পদমূল্য ২৭ হাজার ৭০০ কোটি ডলার।

ইলন মাস্কের পড়ে আছেন ফরাসি ধনকুবের বারনার্ড আরনল্ট। তিনি মূলত বিলাসবহুল পণ্যের ব্যবসা করেন। তাঁর কোম্পানির নাম এলভিএমএইচ। এখন তিনি বিশ্বের তৃতীয় শীর্ষ ধনী। এ বছর তাঁর সম্পদমূল্য বেড়েছে ৬ হাজার ১৩০ কোটি ডলার।

ইলন মাস্ক বরাবরই বর্ণিল চরিত্রের অধিকারী। ২০২১ সালে টেলিভিশনে এক সরাসরি অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেছেন তিনি। ২০২১ সালের নভেম্বর মাসে তিনি ১ হাজার ৬৪০ কোটি ডলারের শেয়ার বিক্রি করেন। তবে এই শেয়ার বিক্রির ঘটনা সোজাসাপটা ছিল না। সামাজিক মাধ্যম টুইটারে অনুসরণকারীদের কাছে তিনি জানতে চান, এ বছর টেসলার ১০ শতাংশ শেয়ার বিক্রি করবেন কি না। জবাবে অনুসরণকারীরা ‘হ্যাঁ’ বললে ইলন মাস্ক শেয়ার বিক্রি করে দেন। তবে এই ঘোষণার ঠিক দুই দিন আগে টেসলার শেয়ারের দাম রেকর্ড উচ্চতায় পৌঁছে, কিন্তু তাঁর শেয়ার বিক্রির ঘোষণার পর শেয়ারের দাম দ্রুত কমতে শুরু করে। তা সত্ত্বেও ২০২১ সালের শেষ নাগাদ টেসলার শেয়ারের দাম গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ৫৪ শতাংশ বেশি ছিল।

শীর্ষ ধনীর তালিকায় আরেকজন বিশিষ্ট ব্যক্তি হচ্ছেন মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস। তিনি দীর্ঘদিন শীর্ষ ধনীর কাতারে সবার ওপরে ছিলেন। এ বছর তাঁর সম্পদমূল্য বেড়েছে ৭১৩ কোটি ডলার। সব মিলিয়ে এখন তাঁর সম্পদমূল্য ১৪ হাজার কোটি ডলার।

গুগলের সহপ্রতিষ্ঠাতা ল্যারি পেজ ও সার্গেই ব্রিনের সম্পদমূল্য বেড়েছে যথাক্রমে ৪ হাজার ৭৪০ কোটি ডলার ও ৪ হাজার ৫১০ কোটি ডলার।
ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গের সম্পদমূল্য বেড়েছে ২ হাজার ৪৩০ কোটি ডলার। তাঁর মোট সম্পদমূল্য এখন ১২ হাজার ৮০০ কোটি ডলার।

আরেক শীর্ষ ধনী ওয়ারেন বাফেটের সম্পদমূল্য বেড়েছে ২৪০ কোটি ডলার।
বিশ্বের শীর্ষ ধনীদের সম্পদের বেশির ভাগই শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করা আছে। শেয়ারের দাম বাড়লে তাঁদের সম্পদমূল্য বেড়ে যায়, আর শেয়ারের দাম কমলে সম্পদমূল্য কমে যায়।

বিশ্ববাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন