বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

এদিকে আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানি লিমিটেডের সহকারী প্রকৌশলী, সহকারী ব্যবস্থাপক ও উপসহকারী প্রকৌশলী পদের পরীক্ষাও ১২ নভেম্বর ঘোষণা করা হয়েছে। ওই দিন সকাল ৯টা থেকে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) এসব পদের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

দুটি প্রতিষ্ঠানেই চাকরির জন্য আবেদন করেছেন অনেক প্রার্থী। ফলে একই দিনে এসব পদের পরীক্ষার সূচি প্রকাশ করায় বিপাকে পড়েছেন তাঁরা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক চাকরিপ্রার্থী প্রথম আলোকে বলেন, ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের এডি পদের চাকরি আমাদের মতো অনেকের কাছে স্বপ্নের চাকরি। দীর্ঘ দিন ধরে এ পদের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি। আশুগঞ্জ পাওয়ারের পদগুলোও আকর্ষণীয়। একই দিনে মাত্র এক ঘণ্টার ব্যবধানে পরীক্ষা পড়ায় আগেই আমাকে একটি বাদ দিতে হচ্ছে। ঢাকা শহরে এক কেন্দ্র থেকে আরেক কেন্দ্রে যেতে কমপক্ষে দুই ঘণ্টা সময় লাগে। ফলে এক হাজার টাকা দিয়ে আবেদন করেও আমি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারছি না।’

আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী এ এম এম সাজ্জাদুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, ‘দুই প্রতিষ্ঠানের পদ ভিন্ন। আমরা ইঞ্জিনিয়ার নিচ্ছি, বাংলাদেশ ব্যাংক ইঞ্জিনিয়ার নিচ্ছে না। তা ছাড়া করোনার কারণে অনেক দিন অনেক প্রতিষ্ঠানের নিয়োগ আটকে ছিল। চাকরির পরীক্ষা নেওয়ার জন্য কেন্দ্র পাওয়া যাচ্ছে না। ছয় মাস চেষ্টার পর বুয়েটে পরীক্ষা নেওয়ার জন্য কেন্দ্র পেয়েছি।’

খবর থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন