default-image

৪৩তম বিসিএসের আবেদনের যোগ্যতায় সংশোধনী আনা হয়েছে। এ বিসিএসের আবেদনের সময়সীমা পেছানো হয়েছে আরও তিন মাস। এ বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার তারিখও পেছানো হয়েছে। এ বিসিএসের আবেদনপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ৩১ মার্চ সন্ধ্যা ৬টার পরিবর্তে আগামী ৩০ জুন সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত পুনর্নির্ধারণ করা হয়েছে।

গতকাল সোমবার বাংলাদেশ কর্ম কমিশনের (পিএসসি) বিজ্ঞপ্তিতে এসব কথা বলা হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ৪৩তম বিসিএসের আবেদনের যোগ্যতায় সংশোধনী আনা হয়েছে। সংশোধনী অনুযায়ী, স্নাতকের পরীক্ষার ফল প্রকাশিত না হলেও অ্যাপিয়ার্ড হিসেবে ৪৩তম বিসিএসে আবেদন করা যাবে। তবে তা সাময়িকভাবে গ্রহণ করা হবে।

বিজ্ঞাপন

সংশোধিত নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ‘যদি কোনো প্রার্থী এমন কোনো পরীক্ষায় অবতীর্ণ হয়ে থাকেন, যে পরীক্ষায় পাস করলে তিনি ৪৩তম বিসিএস পরীক্ষায় অংশগ্রহণের যোগ্যতা অর্জন করেন এবং যদি তাঁর ওই পরীক্ষার ফলাফল ৪৩তম বিসিএস পরীক্ষার আবেদনপত্র দাখিলের শেষ তারিখ পর্যন্ত প্রকাশিত না হয়, তাহলেও তিনি অবতীর্ণ প্রার্থী (অ্যাপিয়ার্ড) হিসেবে অনলাইনে আবেদনপত্র দাখিল করতে পারবেন। তবে তা সাময়িকভাবে গ্রহণ করা হবে। কেবল সেই প্রার্থীকেই অবতীর্ণ প্রার্থী হিসেবে বিবেচনা করা হবে, যার স্নাতক বা স্নাতকোত্তর সব লিখিত পরীক্ষা আবেদন গ্রহণের শেষ তারিখ, অর্থাৎ আগামী ৩০ জুনের মধ্যে সম্পূর্ণরূপে শেষ হয়েছে।’

default-image

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, ৪৩তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা আগামী ১৫ অক্টোবর সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ঢাকা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল, সিলেট, রংপুর ও ময়মনসিংহ কেন্দ্রে একযোগে অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষার হল, আসনব্যবস্থা এবং পরীক্ষাসংক্রান্ত বিস্তারিত নির্দেশাবলি যথাসময়ে সংবাদমাধ্যম ও কমিশনের ওয়েবসাইটে (www.bpsc.gov.bd) প্রকাশ করা হবে।

৪৩তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, এ বিসিএসে বিভিন্ন ক্যাডারে ১ হাজার ৮১৪ জন কর্মকর্তা নেওয়া হবে। এর মধ্যে প্রশাসন ক্যাডারে ৩০০, পুলিশ ক্যাডারে ১০০, পররাষ্ট্র ক্যাডারে ২৫, শিক্ষা ক্যাডারের জন্য ৮৪৩, অডিটে ৩৫, তথ্যে ২২, ট্যাক্সে ১৯, কাস্টমসে ১৪ ও সমবায়ে ১৯ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে।

প্রিলিমিনারি পরীক্ষার নম্বর বণ্টন

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, প্রার্থীকে ২০০ নম্বরের প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। পরীক্ষার সময় ২ ঘণ্টা। প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় ২০০টি প্রশ্ন থাকবে। প্রার্থী প্রতিটি শুদ্ধ উত্তরের জন্য ১ নম্বর পাবেন। তবে ভুল উত্তর দিলে প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য প্রাপ্ত মোট নম্বর থেকে দশমিক ৫০ (শূন্য দশমিক পাঁচ শূন্য) নম্বর কাটা যাবে। প্রিলিমিনারির বিষয়ভিত্তিক সিলেবাস পিএসসির ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।

পরীক্ষাকেন্দ্র

প্রিলিমিনারি ও লিখিত পরীক্ষা ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, সিলেট, রংপুর ও ময়মনসিংহ কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে।

বিজ্ঞাপন
খবর থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন