default-image

গত ১১ বছর ধরে ‘পাঠ্যপুস্তক উৎসব’ করে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের হাতে বিনা মূল্যের পাঠ্যবই তুলে দেওয়া হলেও আসন্ন নতুন বছরে সেটি হচ্ছে না। বিকল্প উপায়ে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বছরে নতুন পাঠ্যবই পৌঁছে দেওয়া হবে।
এসব তথ্য জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। করোনার কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি বাড়ানোর ঘোষণার জন্য আজ বৃহস্পতিবার আয়োজিত ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এই কথা জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন

দীপু মনি বলেন, ‘বই তৈরি থাকবে। কিন্তু আমরা যেভাবে বই উৎসব করি, সব শিক্ষার্থী হাজির হয়, এবার স্বাস্থ্যঝুঁকির কারণে নিশ্চয় আমরা সেই রকম সমাবেশ করে শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দিতে পারব না। কাজেই বিকল্প চিন্তা করে কীভাবে প্রতিটি শিক্ষার্থীর হাতে বই পৌঁছে দেওয়া যায় সেই বিষয়টি নিয়ে আমরা চিন্তাভাবনা করব। উৎসব গুরুত্বপূর্ণ, তাতে কোনো সন্দেহ নেই। কিন্তু সেই উৎসব করতে গিয়ে বড় একটা স্বাস্থ্যঝুঁকি নেওয়া বোধ হয় সঠিক হবে না। কাজেই বিকল্প কীভাবে করতে পারি সেটি জানিয়ে দেওয়া হবে।’

সরকার ২০১০ সাল থেকে বছরের প্রথম দিন উৎসব করে শিক্ষার্থীদের হাতে বিনা মূল্যের পাঠ্যবই দিয়ে আসছে। কিন্তু এবার করোনা ভাইরাসের কারণে সেটি বাদ দিতে হচ্ছে।
এই সংবাদ সম্মেলনেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়ানোর ঘোষণা দেন শিক্ষামন্ত্রী। এরপর সীমিত পরিসরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার চিন্তাভাবনা চলছে। তবে তা নির্ভর করছে পরিস্থিতির ওপর।
করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি চলছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0