default-image

করোনাভাইরাসের কারণে কাটছাঁট করে প্রকাশিত ২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষার পাঠ্যসূচি আরও ছোট করা হচ্ছে। আগামী ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে এ পাঠ্যসূচি পুনর্বিন্যাস করতে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডকে (এনসিটিবি) নির্দেশ দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।

পাঠ্যসূচি নিয়ে আজ বুধবার এনসিটিবিতে অনুষ্ঠিত এক সভায় শিক্ষামন্ত্রী এ নির্দেশ দেন বলে প্রথম আলোকে জানিয়েছেন এনসিটিবির একজন সদস্য।

এর আগে গত সোমবার এনসিটিবির প্রণয়ন করা এসএসসির একটি পাঠ্যসূচি ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছিল। কিন্তু সেটি তুলনামূলক বড় হয়েছে বলে আলোচনা হচ্ছে। এ অবস্থায় পাঠ্যসূচি পুনর্বিন্যাস করে আরেকটু ছোট করার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

এনসিটিবির একজন কর্মকর্তা প্রথম আলোকে বলেন, ইতিমধ্যে প্রকাশিত পাঠ্যসূচি স্বাভাবিক পাঠ্যসূচির চেয়ে বিষয়ভেদে ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ পর্যন্ত কমানো হয়েছিল।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু অনেকে বলছেন এটি নাকি বড় হয়েছে। শিক্ষামন্ত্রী তাঁদের বলেছেন, ফেব্রুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত এসএসসি পরীক্ষার্থীদের ক্লাস নিতে চান। সে বিষয়টিকে মাথায় রেখে নতুন করে পাঠ্যসূচি করতে বলেছেন। যেহেতু ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে স্কুল-কলেজ খোলার প্রস্তুতি নিতে বলা হয়েছে, তাই এ সময়ের মধ্যেই পাঠ্যসূচিটি কাটছাঁট করে চূড়ান্ত করা হবে। কাটছাঁট করা মানে পাঠ্যসূচিটি আরও ছোট করা হবে।

একই সঙ্গে প্রকাশ করা না হলেও এইচএসসির পরীক্ষার্থীদের জন্য প্রণয়ন করা পাঠ্যসূচিও পুনর্বিন্যাস করে প্রকাশ করা হবে বলে জানান এনসিটিবির এই সদস্য।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। তবে আগামী ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার। অবশ্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুললেও সব শ্রেণির ক্লাস হবে না।

প্রথমে শুধু দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির অর্থাৎ এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের নিয়মিত ক্লাস হবে। বাকি শ্রেণিগুলোর ক্লাস হবে সপ্তাহে এক দিন।

সরকারের পরিকল্পনা হলো, কাটছাঁট পাঠ্যসূচিতে জুনে এসএসসি এবং জুলাই-আগস্টে এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া।

শিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন