default-image

ভারতে করোনার সংক্রমণের হার দিনকে দিন বেড়েই চলেছে। এর সঙ্গে বাড়ছে মৃত্যুর হার। করোনা প্রকোপ থেকে শিক্ষার্থীদের বাঁচাতে দেশটিতে বাতিল করা হচ্ছে একের পর এক পাবলিক পরীক্ষা আর বন্ধ হয়েছে স্কুল। দ্য কাউন্সিল ফর দ্য ইন্ডিয়ান স্কুল সার্টিফিকেট এক্সামিনেশন (সিআইএসসিই) দশম শ্রেণির পরীক্ষা বাতিল করেছে। সিবিএসইর পর এবার এ পরীক্ষা বাতিল করা হলো। দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে আগেই। সেই পরীক্ষা হবে কি না, সে বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে জুন মাসের প্রথম সপ্তাহে।

এদিকে পশ্চিমবঙ্গে প্রতিদিন বাড়ছে করোনায় আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা। এ পরিস্থিতিতে করোনার সংক্রমণ রুখতে নানা নির্দেশিকা জারি করেছে রাজ্যটি। রাজ্যের সব স্কুল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আজ মঙ্গলবার থেকে বন্ধ থাকবে রাজ্যের সব স্কুল। এগিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে গ্রীষ্মকালীন ছুটি। ছাত্রছাত্রীদের পাশাপাশি স্কুলে যেতে হবে না শিক্ষকদেরও। নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির পড়া চলছিল স্কুলগুলোয়। সেই চার শ্রেণির ক্লাসের পাঠ আপাতত বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে।

গত বছরও করোনার কারণে একাধিক পরীক্ষা বাতিল করেছিল ভারত। পাশাপাশি বদলে গিয়েছিল মূল্যায়নের ধরন। চলতি বছরের শুরু থেকে করোনা পরিস্থিতিতে বদল আসতে শুরু করে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে আংশিকভাবে খোলা হয় স্কুল। কিন্তু মার্চের শুরু থেকে আবার করোনার সংক্রমণ বাড়তে থাকে। এর ফলে স্কুল বন্ধ করে দেওয়ার পাশাপাশি পরীক্ষাও বাতিল অথবা পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় দেশটির শিক্ষা মন্ত্রণালয়।  

বিজ্ঞাপন

দিন কয়েক আগেই সিআইএসসিই কাউন্সিলও থেকে জানানো হয়েছিল, কোভিড পরিস্থিতির জন্য দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এর কয়েক দিন মধ্যে সিদ্ধান্ত বদলে ফেলল সংশ্লিষ্ট বোর্ড। স্কুলগুলোয় নতুন করে পাঠানো নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, দেশে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতি। সেদিকে নজর রেখেই দশম শ্রেণির পরীক্ষা বাতিল করা হল। স্কুলগুলোয় একাদশ শ্রেণির ভর্তিপ্রক্রিয়া শুরুরও নির্দেশ দিয়েছে বোর্ড। শিক্ষা বোর্ড বলছে, আরও জানানো হয়েছে, কোভিড পরিস্থিতির দিকে নজর রাখা হচ্ছে। এমন অবস্থায় দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা হবে কি না, সে বিষয় সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে আগামী জুন মাসের প্রথম সপ্তাহে।

তথ্যসূত্র: এনডিটিভি ও ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

শিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন