default-image

করোনার কারণে দেশের শিক্ষাব্যবস্থা বিভিন্নভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। দেশের এমন পরিস্থিতিতে বিশ্বের অন্যতম ইলেকট্রনিকস প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান ক্যাসিও (সাইন্টিফিক ক্যালকুলেটর হিসেবে পরিচিত) ২০ লাখের বেশি শিক্ষার্থীর শিক্ষাদানের ক্ষেত্রে ই-লার্নিংয়ের ব্যবস্থা করেছে।

এ কর্মসূচির মাধ্যমে ক্যাসিও জেএসসি, এসএসসি ও এইচএসসি পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের সহায়তা প্রদান করেছে। শুরুতেই ক্যাসিও ২০২০ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত গণিত শিখতে ও শেখানোর জন্য তাদের শিক্ষামূলক সফটওয়্যারটি বিনা মূল্যে প্রবেশাধিকারের ব্যবস্থা করেছে। সফটওয়্যারটি <https://edu.casio.com/softwarelicense/index.php> এই লিংক থেকে ডাউনলোড করা যাবে। ব্যাকবোন লিমিটেডের সহযোগিতায় এ বছরের জুন থেকে ক্যাসিও এসএসসির গণিত ক্লাস শুরু করেছে। ক্লাসগুলো তাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে পাওয়া যাবে।

এদিকে বাংলাদেশের বৃহত্তম অনলাইন শিক্ষামূলক প্ল্যাটফর্ম টেন মিনিট স্কুলের সঙ্গে যৌথভাবে জেএসসি ও এইচএসসি শিক্ষার্থীদের জন্য বিনা মূল্যে ১ ঘন্টার ৩০টি অনলাইন ক্লাস প্রদান করেছে। টেন মিনিট স্কুলের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে বিনা মূল্যে এসব ক্লাস পাওয়া যাবে।

বিজ্ঞাপন
default-image

এই উদ্যোগ সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে সার্কভুক্ত দেশগুলোর ভাইস প্রেসিডেন্ট কুলভূষণ শেঠ বলেন, ক্যাসিও সব সময় তার অনন্য ও উদ্ভাবনী শিক্ষামূলক পণ্যে প্রযুক্তি ব্যবহার করে শিক্ষাক্ষেত্রকে সহায়তা করার জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

ব্যাকবোন লিমিটেডের প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুল মতিন শেখ বলেন, ভার্চ্যুয়াল ক্লাস আমাদের শিক্ষার্থীদের জন্য একটি অত্যন্ত প্রয়োজনীয় উদ্যোগ। যদিও অনলাইন ক্লাসগুলো স্কুল বন্ধ থাকার কারণে যে ক্ষতি হচ্ছে, তা পূরণ করতে পারবে না, কিন্তু এই ক্লাসগুলো শিক্ষার্থীদের সুবিধা দিচ্ছে এবং জ্ঞানকে অনেকাংশে স্থানান্তর করছে।

টেন মিনিট স্কুলের সিইও আয়মান সাদিক বলেন, ডিজিটাল লার্নিং রিসোর্স শিক্ষার্থীদের স্বপ্নের জীবন অনুসরণ করতে সহায়তা করে এবং একটি উজ্জ্বল ভবিষ্যতের জন্য নিজেকে শিক্ষিত করতে সক্ষম করে তুলে। বিজ্ঞপ্তি

মন্তব্য পড়ুন 0