default-image

তাঁরা সবাই গণিতের গর্ব। তাঁদের অনেকের দখলে আছে গণিতের জাতীয় ও আন্তর্জাতিক নানা স্বীকৃতি। দেশ সেরা এমনই ছয় খুদে গণিতবিদ বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছে দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠেয় আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডের (আইএমও) ৫৫তম মহাযজ্ঞে। এই ছয়জন হলেন ময়মনসিংহ জিলা স্কুলের আদিব হাসান ও সানজিদ আনোয়ার, সিরাজগঞ্জ বিএল উচ্চবিদ্যালয়ের সাজিদ আখতার, সিলেট সরকারি পাইলট উচ্চবিদ্যালয়ের আসিফ-ই-ইলাহী, রাজশাহী কলেজের মুতাসিম মিম ও ঢাকা কলেজের নূর মোহাম্মদ শফিউল্লাহ।
আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডে অংশ নিতে বাংলাদেশ দল ঢাকা ছেড়েছে ৫ জুলাই। ৫৫তম আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডে অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশসহ ১০৯টি দেশের ৫৮০ জন প্রতিযোগী। অলিম্পিয়াডের মূল আয়োজন অনুষ্ঠিত হবে ৭ থেকে ৯ জুলাই।
অংশগ্রহণকারী এই দলটির নির্বাচন প্রক্রিয়া নিয়ে বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটির সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান বলেন, ‘এ বছর গণিত উৎসবে ২২টি আঞ্চলিক পর্বে অংশ নেওয়া প্রায় ২৫ হাজার শিক্ষার্থীর মধ্য থেকে বিজয়ী এক হাজার ৫৫ জন শিক্ষার্থী নিয়ে অনুষ্ঠিত হয় জাতীয় উৎসব। সেখান থেকে জুনিয়র, সেকেন্ডারি ও হায়ার সেকেন্ডারি পর্যায়ের সেরা ৩৫ জন শিক্ষার্থী নিয়ে অনুষ্ঠিত হয় দশম জাতীয় গণিত ক্যাম্প। সার্বিক ফলাফলের ভিত্তিতে এই ছয়জনকে নির্বাচন করা হয়।’
বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্বকারী সদস্যদের মধ্যে একাধিকবার অংশ নেওয়ার অভিজ্ঞতা যেমন কারও কারও রয়েছে, তেমনি রয়েছে এই প্রথম কোনো আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া সদস্যও।
যেমন ঢাকা কলেজর নূর মোহাম্মদ সফিউল্লাহ। জাতীয় গণিত অলিম্পিয়াডে তিন তিনবার চ্যাম্পিয়ন এই শিক্ষার্থী এবার নিয়ে আন্তর্জাতিক এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিচ্ছে চতুর্থবার। যার মধ্যে গত দুই বছর তিনি পেয়েছেন ব্রোঞ্জপদক। এবারের প্রতিযোগিতা নিয়ে সফিউল্লাহ বলেন, ‘আমি এবার এইচএসসি পরীক্ষা দিয়েছি, তাই এবারই আমার শেষ সুযোগ। আমার চেষ্টা থাকবে সর্বোচ্চ ভালো ফলাফলের।’ সফিউল্লাহর মতো আদিবও চান সেরা হতে। এবার তিনি তৃতীয়বারের মতো আইএমওতে অংশ নিচ্ছেন। আইএমওতে তাঁর সাফল্যের ঝুলিতে আছে একটি ব্রোঞ্জপদক। এবারও পদক পাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী আদিব।
নবাগত চার প্রতিযোগীও ভালো ফলাফলের প্রত্যাশা করছেন। প্রথমবারের মতো অংশগ্রহণকারীর দলে আছেন সাজিদ আখতার, সানজিদ আনোয়ার, আসিফ-ই-ইলাহী ও মুতাসিম মিম। নিজের প্রস্তুতির কথা মুতাসিম মিম যেমনটি বলছিলেন, ‘বিগত কোনো বছরের সঙ্গে যেহেতু প্রশ্নপত্রের মিল থাকে না, তাই কতটা প্রস্তুতি নিয়েছি সেটাও বলতে পারছি না। তবে গণিতের ক্যাম্পগুলোতে অংশ নিয়ে মনে হচ্ছে সবকিছু মিলে ভালোই করব।’
উল্লেখ্য, বাংলাদেশ এবার দশমবারের মতো অংশ নিচ্ছে আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডে। ২০০৯ সাল থেকে প্রতিবারই বাংলাদেশ দল কোনো না কোনো পদক জয় করে আসছে।
গণিত অলিম্পিয়াডের পুরো আয়োজনে পৃষ্ঠপোষকতা করছে ডাচ্-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড এবং ব্যবস্থাপনায় রয়েছে প্রথম আলো। গণিত অলিম্পিয়াডের খবর জানতে ঢুঁ মারতে পারেন ফেসবুক পেজ (fb.com/BdMOC) ও গ্রুপে (fb.com/groups/BdMOC)।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন