বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গ. N চিহ্নিত অংশটি Hydraএর একটি নিডোসাইট কোষ। এটি দেখতে গোলাকার, ডিম্বাকার, নাসপাতি আকার বা পেয়ালাকার। তবে মেসোগ্লিয়াসংলগ্ন প্রান্তটি সামান্য সরু এবং মুক্ত প্রান্ত চওড়া ও স্ফীত। নিচে এর গঠন বর্ণনা করা হলো:

১. আবরণ: প্রতিটি কোষ দ্বিস্তরী আবরণে আবৃত। স্তর দুটির মাঝখানে দানাদার সাইটোপ্লাজম এবং কোষের গোড়ার দিকে একটি নিউক্লিয়াস থাকে।

চিত্র: নিডোসাইট। বাঁয়ে স্বাভাবিক অবস্থায় ও ডানে সুতাটি উন্মুক্ত

২. নেমাটোসিস্ট: কোষের ভিতরে প্রোটিন ও ফেনলে গঠিত হিপনোটক্সিন নামক বিষাক্ত তরলে পূর্ণ এবং একটি লম্বা, সরু, ফাঁপা ও প্যাঁচানো সূত্রকযুক্ত স্থূল প্রাচীরের ক্যাপস্যুলকে নেমাটোসিস্ট বলে। প্রকৃতপক্ষে ক্যাপস্যুলের সরু প্রান্তটি প্রলম্বিত হয়ে সূত্রক গঠন করে। সূত্রকের চওড়া গোড়াটি বাট। এতে তিনটি বড় বড় তীক্ষ্ণ কাঁটার মতো বার্ব এবং সর্পিল সারিতে বিন্যস্ত ক্ষুদ্রতর কাঁটার মতো বার্বিউল দেখা যায়।

৩. অপারকুলাম: এটি ঢাকনার মতো একটি গঠন, যা দিয়ে নেমাটোসিস্টের ওপরের প্রান্ত ঢাকা থাকে।

৪. নিডোসিল: এটি নিডোসাইটের মুক্ত প্রান্তের একপাশে অবস্থিত দৃঢ়, ক্ষুদ্র, সংবেদনশীল রোমের মতো অংশ। এটি ট্রিগারের তো কাজ করে। ফলে প্যাঁচানো সুতাটি বাইরে নিক্ষিপ্ত হয়।

৫. পেশিসূত্র: কতগুলো ক্ষুদ্র পেশিতন্তু ক্যাপসুলের পৃষ্ঠদেশ থেকে সৃষ্টি হয়ে সাইটোপ্লাজমে প্রবেশ করে। পরে সবগুলো তন্তু একত্র হয়ে নিডোসাইটের বৃত্তের ভিতর দিয়ে মেসোগ্লিয়ারের সাথে মিলিত হয়। এ ছাড়া নেমাটোসিস্টের নিম্ন প্রান্তে ল্যাসো নামে একটি প্যাঁচানো সুতা অবস্থান করে।

ঘ. M অংশটি Hydra-এর এপিডার্মিসের কোষ এবং P অংশটি গ্যাস্ট্রোডার্মিসের কোষ। নিচে কোষগুলোর তুলনামূলক আলোচনা করা হলো:

১. M অংশটি (এপিডার্মিস) ভ্রুণীয় এক্টোডার্ম থেকে উৎপন্ন এবং দেহের বাইরের দিকে অবস্থিত। কিন্তু P অংশটি (গ্যাস্টোডার্মিস) ভ্রুণীয় এন্ডোডার্ম থেকে উৎপন্ন এবং দেহের ভিতরের দিকে ,অর্থাৎ সিলেন্টরনকে ঘিরে অবস্থান করে।

২. এপিডার্মিসে ক্ষণপদযুক্ত কোষ ও ফ্ল্যাজেলাযুক্ত কোষ দেখা না গেলেও গ্যাস্ট্রোডার্মিসে ক্ষণপদযুক্ত ও ফ্লাজেলাযুক্ত কোষ পুষ্টির কাজে নিয়োজিত।

৩. এপিডার্মিসে পেশি আবরণী কোষের নিঃসৃত রসে কিউটিকল সৃষ্টি হয়। কিন্তু গ্যাস্ট্রোডার্মিসে কিউটিকল অনুপস্থিত।

৪. এপিডার্মিসে নিডোসাইট কোষ প্রতিরক্ষা ও আত্মরক্ষার কাজে ব্যবহৃত হয়। গ্যাস্ট্রোডার্মিসে নিডোসাইট কোষ অনুপস্থিত।

৫. এপিডার্মিসে জননাঙ্গ ও মুকুল উপস্থিত থাকলেও গ্যাস্ট্রোডার্মিসে তা অনুপস্থিত।

৬. এপিডার্মিস Hydra-এর দেহকে বাইরের আঘাত থেকে রক্ষা করে এবং পরিবেশ হতে উদ্দীপনা গ্রহণ করে। আর গ্যাস্ট্রোডার্মিস মূলত পুষ্টির কাজে নিয়োজিত।

সুতরাং ওপরের আলোচনা থেকে প্রতীয়মান হয়, M অংশটি (এপিডার্মিস) P অংশ (গ্যাস্ট্রোডার্মিস) হতে ভিন্ন।


মোহাম্মদ আক্তার উজ জামান, প্রভাষক
রূপনগর সরকারি মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ঢাকা

শিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন