বিজ্ঞাপন

আমার মূল আগ্রহ বিভিন্ন রকম আকৃতি (Structures) নিয়ে। বিভিন্নভাবে এই সমস্যাগুলো দেখা যায়, আপনি কোনো একটা তলে একটা বস্তুর বিভিন্ন রকম জ্যামিতিক আকৃতি নিয়ে কাজ করতে পারেন কিংবা এমন তলগুলো নিয়েও আলোচনা করতে পারেন, যেখানে কিছু নির্দিষ্ট জ্যামিতিক আকৃতি থাকতে পারে। একটা বেশ বিখ্যাত উদাহরণ আছে বিলিয়ার্ড বলের। একটি বিলিয়ার্ড বলকে বিলিয়ার্ড টেবিলের ওপর যেকোনো একটি বিন্দুতে রেখে যদি আঘাত করা হয়, তাহলে সেটি গড়িয়ে যেতে থাকবে এবং টেবিলের ধারে আঘাত করতে থাকবে। ধরুন, এটি আজীবন এভাবেই চলছে। বলটির গতিপথ তাহলে কেমন হবে? গতিপথ দিয়ে কি পুরো টেবিল ঢেকে ফেলা যাবে? বিলিয়ার্ড বলের এই পথ কি মুক্ত হবে, না বদ্ধ পথ হবে? মজার বিষয় হলো, এটা খুবই সাধারণ একটা প্রশ্ন।

সাধারণভাবে বললে, আপনি যদি একটা বহুভুজ নিয়ে কাজ করেন, আর তার কোণগুলোয় কোনো রকমের স্টিচ (Stitches) না দেন, তাহলে দুই রকম প্রশ্নের উদ্রেক হয়। একটা এমন, আপনি একটি তলে একটি জ্যামিতিক আকৃতি নিয়ে কাজ করছেন, সেই আকৃতির বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য দেখা। অন্য একটি প্রশ্ন সেই তলের বিভিন্ন বৈশিষ্ট্যসম্পর্কিত।

আপনি একটি নির্দিষ্ট তল বেছে নিলেন এবং তাতে কিছু জ্যামিতিক আকৃতি তৈরি করতে থাকলেন এবং দেখলেন সেসব আকৃতিকে সমর্থন করতে গিয়ে কী রকম তল তৈরি হচ্ছে। কিছু সমস্যা এমন থাকে যে আপনি একটি অনন্যসাধারণ (Generic Surface) তল নিলেন এবং তার বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য বা আচরণগুলো খুঁজে বের করার চেষ্টা করছেন। কিন্তু এ রকম একটামাত্র অনন্যসাধারণ তলে একটি জ্যামিতিক আকৃতি নিয়ে নিয়ে কাজ করা খুবই কঠিন। আমি আমার কিছু সহকর্মীর সঙ্গে এ রকম তল নিয়েও কাজ করেছি। আপনি এসব একই প্রশ্ন পরাবৃত্তিক তল কিংবা সমতলের ক্ষেত্রেও করতে পারেন।

আমার কাছে এসব সমস্যা গুরুত্বপূর্ণ মনে হয়েছে। কারণ, এসব সমস্যা অন্যান্য সমস্যার সঙ্গেও সম্পর্কিত। এমনকি আপনি যদি বহুমাত্রিক জ্যামিতি নিয়েও কাজ করতে যান, সেটা করার একটি উপায় হচ্ছে, ওই বহুমাত্রিক স্পেসে একটা সুবিধাজনক তল বের করা। শেষমেশ আপনি অনেক রকম তলের বৈশিষ্ট্য সম্পর্কে জানতে পারবেন, তার ওপর বিভিন্ন রকম বস্তু বা আকৃতি এবং তাদের বৈশিষ্ট্য নিয়েও জানতে পারবেন। এই প্রশ্নই শেষ নয়, বরং কীভাবে আপনি সমস্যাটার সমাধান করছেন, সে যাত্রাই গুরত্বপূর্ণ।’

(c) International Mathematical Union মরিয়ম কেবল গণিতের জগতের পথদ্রষ্টাই নন, বরং তিনি নারীদের জন্যও পথদ্রষ্টা হিসেবে কাজ করেছেন। তিনিই ফিল্ডস মেডেল জয়ী প্রথম নারী। ২০১৭ সালে ক্যানসারের জন্য এই মহীয়সী নারীকে হারাতে হয়। পুরো পৃথিবী এখন পরবর্তী মরিয়ম মির্জাখানির দিকে চেয়ে আছে। তাঁর মতো সুচিন্তক পৃথিবীকে একটি অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যান। গণিত ও বিজ্ঞানে নারীদের অসামান্য অবদানের জন্য মুখিয়ে আছে সারা বিশ্ব, তাঁদেরও আলিঙ্গন করতে চায় গণিতের দুনিয়া। আমরা মরিয়মের মতো সব সুচিন্তকের আত্মার শান্তি কামনা করি।

শিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন