বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রশ্ন: আমরা কবে স্বাধীনতা দিবস পালন করে থাকি? কতবার তোপধ্বনির মধ্য দিয়ে এই দিবস শুরু করা হয়। আমরা কীভাবে আমাদের স্বাধীনতা দিবস পালন করি?

উত্তর: আমরা ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস পালন করে থাকি। এ দিনটি আমরা জাতীয়ভাবে পালন করে থাকি।

এ দিনের শুরু হয় ভোরে ৩১ বার তোপধ্বনির মধ্য দিয়ে। এরপর জাতীয় স্মৃতিসৌধে ফুল দেওয়া শুরু হয়। বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও পেশাজীবী সংগঠন জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে। বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিশু-কিশোরদের সমাবেশ হয়। জাতীয়ভাবে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রীরা তাদের নিজস্ব ইউনিফর্ম পরিধান করে কুচকাওয়াজ ও শারীরিক কসরত প্রদর্শনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীকে সালাম জানায়। প্রধানমন্ত্রী তাদের সালাম গ্রহণ করেন।

এদিকে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধীদলীয় নেতা বাণী প্রদান করে থাকেন। রেডিও-টেলিভিশন বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার করে। বিভিন্ন স্থানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, আলোচনা সভা ও দোয়ার আয়োজন করে যথাযোগ্য মর্যাদার সঙ্গে আমরা দিবসটি পালন করি।

প্রশ্ন: ভারত শরণার্থীদের কীভাবে সাহায্য করেছিল? মুক্তিযুদ্ধে ভারত আমাদের কীভাবে সাহায্য করেছিল?

উত্তর: মুক্তিযুদ্ধে ভারত আমাদের বিভিন্নভাবে সাহায্য করেছিল। মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে এ দেশ থেকে বহু মানুষ শরণার্থী হিসেবে ভারতে আশ্রয় নেয়। ভারত সরকার আশ্রয় নেওয়া বাংলাদেশীদের খাবার, থাকা, বস্ত্র ও চিকিত্সাসেবা দিয়ে সাহায্য করেন।

মুক্তিযুদ্ধে সহযোগিতার জন্য ভারত মিত্রবাহিনী গঠন করে। ‘অপারেশন জ্যাকপট’ নামের আক্রমণে মিত্রবাহিনী বাংলাদেশের পক্ষে যুদ্ধ করে। লেফটেন্যান্ট জেনারেল জগজিৎ সিং অরোরার নেতৃত্বে মিত্রবাহিনী ১৯৭১ সালের ২১ নভেম্বর মুক্তিবাহিনীর সঙ্গে মিলে যৌথবাহিনী গঠন করে। ১৯৭১ সালের ৩ ডিসেম্বর হঠাৎ পাকিস্তানি বিমানবাহিনী ভারতের কয়েকটি বিমানঘাঁটিতে বোমা হামলা চালায়। এর ফলে যৌথবাহিনী একযোগে স্থল, নৌ ও আকাশপথে আক্রমণ করে। যৌথ বাহিনীর তীব্র আক্রমণে ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর পাকিস্তানি বাহিনী আত্মসমর্পণ করতে বাধ্য হয়। এর ফলে আমরা মাত্র ৯ মাসের যুদ্ধে বিজয় অর্জন করি। মুক্তিযুদ্ধে ভারত আমাদের নানাভাবে সাহায্য করেছিল।

শিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন