default-image

৬.

১৮৯৭ সালে প্রচণ্ড এক ভূমিকম্প হয় আমাদের দেশে। ফলে মাঠঘাট, নদীনালা আর জনবসতি সবই প্রাকৃতিক কারণে বদলে যায়। এখনো তোমরা দেখে থাকো, নদীর পাড়ের জমি, ঘরবাড়ি, গ্রাম আর রাস্তাঘাট ভাঙছে। আবার বিশাল নদীর অন্যদিকে বিস্তীর্ণ চর পড়ছে। শত শত বছর ধরে এভাবেই চলে আসছে ভাঙাগড়া। মাটিচাপা পড়ে যায় এক একটি নগর-জনপদ। মাটি খুঁড়ে এমনি এক সুপ্রাচীন নগর-জনপদের দেখা পাওয়া গেছে বাংলাদেশে। নরসিংদী জেলার সেই স্থানের নাম উয়ারী-বটেশ্বর। উয়ারী-বটেশ্বর ঢাকা থেকে ৭০ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে নরসিংদীর বেলাব ও শিবপুর উপজেলায় অবস্থিত।

উত্তর

ক. মাটি খুঁড়ে পাওয়া সুপ্রাচীন জনপদের নাম কী?

খ. মাঠঘাট, নদীনালা আর জনবসতি বদলে যায় কেন?

গ. কখন আমাদের দেশে প্রচণ্ড ভূমিকম্প হয়?

ঘ. উয়ারী-বটেশ্বর কোথায় অবস্থিত?

ঙ. সুপ্রাচীন নগর-জনপদের দেখা পাওয়া গেছে কীভাবে?

৭.

ঘোর বর্ষায় বৃষ্টির তোড়ে ডুবে যায় মাঠঘাট। রাহেলা বানু শুকনো মুখে বারান্দায় বসে থাকে। দুই বোন ধানখেতের আলের পাশ দিয়ে গড়িয়ে যাওয়া পানি থেকে কুচো চিংড়ি ধরে আনে। ঘরে চাল না থাকায় ওদের মা অন্যের বাড়ি থেকে আনা চালে ভাত রান্না করে।

উত্তর

ক. বৃষ্টির তোড়ে কী ডুবে যায়?

খ. কে শুকনো মুখে বারান্দায় বসে থাকে?

গ. ওদের মা অন্যের বাড়ি থেকে আনা চালে ভাত রান্না করে কেন?

ঘ. রাহেলা বানু কোথায় বসে থাকে?

ঙ. কখন মাঠঘাট ডুবে যায়?

বিজ্ঞাপন

৮.

দুই বোন মা-বাবার আদরের ছায়ায় বড় হয়। স্কুলে যাওয়ার পথে বুনোফুল ছিঁড়ে বেণির সঙ্গে গেঁথে রাখে। ফড়িং ধরে। আবার আকাশে উড়িয়ে দেয়। ফুলের পাপড়ি ছিঁড়ে খাতার ভেতর চাপা দিয়ে রাখে। জসীম মিয়া ওদের কপালে চুমু দিয়ে বলে, আমার মেয়েগুলোর অনেক বুদ্ধি। অনেক বড় হ মা। চাইলে লেখাপড়ার জন্য তোদের আমি ঢাকা পাঠাব। দুই বোন খুশিতে হাততালি দেয়। মা-বাবা ওদের উৎফুল্ল মুখের দিকে তাকিয়ে থাকে। একদিন জসীম মিয়া বাজারে যায়। সেখান থেকে দুই সের চাল-ডাল কিনে বাড়ি ফিরে বারান্দায় ধপাস করে বসে পড়ে। ছুটে আসে রাহেলা বানু।

উত্তর

ক. জসীম মিয়া কে?

খ. স্কুলে যাওয়ার পথে দুই বোন বেণির সঙ্গে কী গেঁথে রাখে?

গ. কেন দুই বোন খুশিতে হাততালি দেয়?

ঘ. জসীম মিয়া লেখাপড়ার জন্য মেয়েদের কোথায় পাঠাতে চায়?

ঙ. দুই বোন কীভাবে বড় হয়?

শিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন