default-image

শখের মৃৎশিল্প

মাটির তৈরি শিল্পকর্মকে বলা হয় মাটির শিল্প বা মৃৎশিল্প। বাংলাদেশের প্রাচীন শিল্পকলার পরিচয় পাওয়া যায় এই মাটির শিল্পে। মৃৎশিল্প আমাদের এ দেশের নিজস্ব শিল্প। তোমরা নিশ্চয় বৈশাখী মেলায় কিংবা নানা পার্বণে বিভিন্ন মেলায় মাটির তৈরি নানা রকম পুতুল, নকশা করা হাঁড়ি, মাটির ফল, তৈজসপত্র বিক্রি হতে দেখেছ। মাটির তৈরি এসব জিনিসই মৃৎশিল্প। গ্রামের কুমোররা নিপুণভাবে এসব তৈরি করেন। প্রাচীনকাল থেকে এ দেশে মৃৎশিল্পের চর্চা হচ্ছে। ময়নামতির শালবন বিহার, বগুড়ার মহাস্থানগড়, বাগেরহাটের ষাটগম্বুজ মসজিদে দেখা যায় পোড়ামাটির ফলক। পোড়ামাটির এসব ফলককে বলা হয় টেরাকোটা। মাটির শিল্প আমাদের বাংলাদেশের ঐতিহ্য।

প্রশ্ন: প্রদত্ত শব্দগুলোর অর্থ লেখো।

শখ, টেপাপুতুল, নকশা, শালবন বিহার, টেরাকোটা, মৃৎশিল্প।

উত্তর

প্রদত্ত শব্দ অর্থ

শখ রুচি, মনের ইচ্ছা।

টেপাপুতুল কুমারেরা নরম এঁটেল মাটির চাক হাতে নিয়ে টিপে টিপে নানা ধরনের ও নানা আকারের পুতুল তৈরি করে। টিপে টিপে তৈরি করা হয় বলে এসব পুতুলের নাম টেপাপুতুল। তবে এসব মাটির পুতুলের হাত-পা বা জোড়াগুলো একটু ভেজা ভেজা মাটি দিয়ে যত্ন করে লাগাতে হয়।

নকশা রেখা দিয়ে আঁকা ছবি।

বিজ্ঞাপন

শালবন বিহার কুমিল্লার ময়নামতিতে মাটি খুঁড়ে আবিষ্কৃত হয়েছে প্রাচীন বৌদ্ধ সভ্যতার নিদর্শন। অষ্টাদশ শতকের এই পুরাকীর্তি বাংলাদেশের প্রাচীন সভ্যতার পরিচায়ক। শালবন বিহারেও পাওয়া গেছে নানা ধরনের পোড়ামাটির ফলক।

টেরাকোটা ‘টেরা’ অর্থ মাটি আর ‘কোটা’ অর্থ পোড়ানো। পোড়ামাটির তৈরি মানুষের ব্যবহারের সব রকমের জিনিস টেরাকোটা হিসেবে পরিচিত।

মৃৎশিল্প মাটির তৈরি শিল্পকর্মকে আমরা বলি মাটির শিল্প বা মৃৎশিল্প।

প্রশ্ন: প্রদত্ত শব্দগুলো খালি জায়গায় বসিয়ে বাক্য তৈরি করো।

শখ, নকশা, মৃৎশিল্প, টেপাপুতুল, টেরাকোটা

ক. এই যে দেখছ, এসবই গ্রামের শিল্পীদের তৈরি।

খ. মাটির পুতুল জমানো আমার একটি ।

গ. মাটির তৈরি শিল্পকর্মকে বলে।

ঘ. আমরা মেলা থেকে অনেক কিনলাম।

উত্তর

ক. এই যে নকশা দেখছ, এসবই গ্রামের শিল্পীদের তৈরি।

খ. মাটির পুতুল জমানো আমার একটি শখ।

গ. মাটির তৈরি শিল্পকর্মকে মৃৎশিল্প বলে।

ঘ. আমরা মেলা থেকে অনেক টেপাপুতুল কিনলাম।

বিজ্ঞাপন
শিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন