default-image

স্মরণীয় যাঁরা চিরদিন

প্রশ্ন: কোন দিনটিকে ‘শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস’ হিসেবে পালন করা হয়? কেন?

উত্তর: ১৯৭১ সালে দীর্ঘ ৯ মাসের মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ বাঙালি শহিদ হন। এর মধ্যে শক্তিমান, যশস্বী ও প্রতিভাবানদের ধরে নিয়ে ১৪ ডিসেম্বর হত্যা করা হয়। তাই প্রতিবছর ১৪ ই ডিসেম্বর আমরা ‘শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস’ হিসেবে পালন করা হয়।

প্রশ্ন: আমরা কীভাবে শহিদদের ঋণ শোধ করতে পারি?

উত্তর: শহিদরা দেশ ও মাতৃভাষার জন্য জীবন দিয়ে ত্যাগের মহান আদর্শ স্থাপন করে গেছেন। ১৯৭১ সালে এ দেশের মানুষ স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধ করেছিলেন, সে যুদ্ধে শহিদ হয়েছিলেন ৩০ লাখ বাঙালি।

আজ আমরা যে স্বাধীনতা ভোগ করছি, তা ওই সব শহিদদেরই অবদান। তাঁদের কাছে আমরা ঋণী। দেশের কল্যাণের জন্য নিজেদের প্রস্তুত করতে হবে। নিজেদের নৈতিক পরিবর্তনের মাধ্যমে আমরা যদি দেশের সার্বিক কল্যাণ সাধন করতে পারি, তবেই শহিদদের ঋণ শোধ করা সম্ভব।

প্রশ্ন: কোন সময়কে মুক্তিযুদ্ধের কাল বলা হয়?

উত্তর: ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ থেকে ১৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত এই ৯ মাস সময়কে বলা হয় মুক্তিযুদ্ধের কাল। এ ৯ মাস যুদ্ধ করার পর আমরা জয়ী হই, অর্জন করি আমাদের স্বাধীনতা।

প্রশ্ন: জ্যোতির্ময় গুহঠাকুরতা কে ছিলেন? তিনি কীভাবে শহীদ হন?

উত্তর: জ্যোতির্ময় গুহঠাকুরতা ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের একজন শহিদ বুদ্ধিজীবী। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ছিলেন। ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে পাকিস্তানি সেনাবাহিনী এ দেশের নিরীহ মানুষের ওপর বর্বর আক্রমণ চালায়। তারা এ দেশকে প্রতিভাশূন্য করতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বাড়িতেও হামলা চালায়। জ্যোতির্ময় গুহঠাকুরতাকে তারা টেনেহিঁচড়ে বাড়ি থেকে বের করে আনে। তারপর গুলি করে হত্যা করে। পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর নির্মম হামলায় এভাবেই তিনি শহিদ হন।

বিজ্ঞাপন

প্রশ্ন: কোন তারিখে পাকিস্তানি সেনারা এ দেশের মানুষের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে?

উত্তর: পাকিস্তানি সেনারা ছিল নিষ্ঠুর, নির্মম। তারা ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে এ দেশের মানুষের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। পাকিস্তানিরা এ আক্রমণের নাম দিয়েছিল ‘অপারেশন সার্চলাইট’।

প্রশ্ন: এককথায় প্রকাশ করে বাক্যের পাশে লেখো।

সংখ্যায় সবচেয়ে বেশি এমন, যা করা প্রয়োজন, যা প্রয়োগ করা যায়, মৃত্যুর মতো কঠিন যন্ত্রণা, বিন্দুর মতো ছোট, রক্ত দিয়ে লাল করা হয়েছে এমন, বরণ করার যোগ্য, মেধা আছে এমন যে জন, অহংকার নেই যার, বিচার বিবেচনা ছাড়া যা, কোনোভাবেই পূরণ করা যায় না এমন।

উত্তর

বাক্য এককথায় প্রকাশ

সংখ্যায় সবচেয়ে বেশি এমন –সংখ্যাগরিষ্ঠ

যা করা প্রয়োজন –প্রয়োজনীয়

যা প্রয়োগ করা যায়– প্রযোজ্য

মৃত্যুর মতো কঠিন যন্ত্রণা –মরণযন্ত্রণা

বিন্দুর মতো ছোট –বিন্দুসদৃশ

রক্ত দিয়ে লাল করা হয়েছে এমন– রক্তরঞ্জিত

বরণ করার যোগ্য –বরেণ্য

মেধা আছে এমন যে জন –মেধাবী

অহংকার নেই যার– নিরহংকার

বিচার বিবেচনা ছাড়া যা– নির্বিচার

কোনোভাবেই পূরণ করা যায় না এমন– অপূরণীয়

শিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন