default-image

হাতি আর শিয়ালের গল্প

প্রশ্ন: প্রদত্ত শব্দগুলো খালি জায়গায় বসিয়ে বাক্য তৈরি করো।

দিগন্তের, অহংকার, তিরিক্ষি, তুলকালাম কাণ্ড

হুংকার, মেদিনী, তটস্থ, শঙ্কিত

ক. বিদ্যুৎ চমকালে কেঁপে ওঠে বলে মনে হতে পারে।

খ. পতনের মূল।

গ. কী হয়েছে, এত হয়ে আছ কেন?

ঘ. বনের সিংহ দিলে মানুষের মনে ভয় জাগে।

ঙ. নিজের কলমটা খুঁজে না পেয়ে সে বাধিয়ে দিয়েছে।

চ. ওপারে কী আছে, কেউ জানে না।

ছ. মেজাজ বলে তার কাছে কেউ ঘেঁষতে চায় না।

জ. তুমি এত কেন? কী হয়েছে?

উত্তর

ক. বিদ্যুৎ চমকালে মেদিনী কেঁপে ওঠে বলে
মনে হতে পারে।

খ. অহংকার পতনের মূল।

গ. কী হয়েছে, এত তটস্থ হয়ে আছ কেন?

ঘ. বনের সিংহ হুংকার দিলে মানুষের মনে
ভয় জাগে।

ঙ. নিজের কলমটা খুঁজে না পেয়ে সে তুলকালাম কাণ্ড বাধিয়ে দিয়েছে।

চ. দিগন্তের ওপারে কী আছে, কেউ জানে না।

ছ. মেজাজ তিরিক্ষি বলে তার কাছে কেউ
ঘেঁষতে চায় না।

জ. তুমি এত শঙ্কিত কেন? কী হয়েছে?

বিজ্ঞাপন

প্রশ্ন: অমিত শক্তিধর কাকে বলা হয়েছে?

উত্তর: ‘অমিত’ শব্দের অর্থ হলো প্রচুর। আর ‘শক্তিধর’ অর্থ হলো শক্তি আছে যার। অমিত শক্তিধর কথাটির অর্থ হলো প্রচুর শক্তি
আছে যার। এখানে গুরুগম্ভীর ভারিক্কি চালের কেশর দোলানো সিংহকে অমিত শক্তিধর বলা হয়েছে।

প্রশ্ন: বনের পশুদের ওপর অশান্তি নেমে আসার কারণ কী?

উত্তর: অনেক অনেক আগে বনে বনে ছিল পশুদের রাজত্ব। হাজার রকমের প্রাণী আর অসংখ্য পাখপাখালি ভরা বন। কোথাও কোনো ঝামেলা ছিল না। বেশ শান্তিতেই কাটছিল বনের পাখি আর প্রাণীদের দিনগুলো।

কিন্তু একদিন তাড়া খেয়ে মস্ত একটা হাতি
এই শান্ত বনে ঢুকে পড়ে। এই হাতির শরীর যেমন বিশাল, তেমনি মেজাজটাও দারুণ তিরিক্ষি। বনে ঢুকেই দুষ্টু হাতিটার সে কী তুলকালাম কাণ্ড! খুব জোরে গলা ফাটানো প্রচণ্ড হুংকারে থরথর করে কেঁপে ওঠে সমস্ত বন। সামনে যা পাচ্ছে তা-ই লন্ডভন্ড করে দিচ্ছে। নিরীহ একটা হরিণকে তো শুঁড়ে জড়িয়ে দূরে ছুড়ে ফেলে দিল। ছোট্ট একটা পিঁপড়াও তার কাছ থেকে রেহাই পায়নি। পায়ের তলায় পিষে মেরে ফেলে পিঁপড়াকে।

এভাবে হাতির আগমন ও অত্যাচারের কারণে শান্ত বনের পশুদের ওপর অশান্তি নেমে আসে।

প্রশ্ন: গল্পে মুক্ত স্বাধীন বলতে কী বোঝানো হয়েছে?

উত্তর: গল্পে মুক্ত স্বাধীন বলতে হাতির
অত্যাচার থেকে নিজেদের রক্ষা করে নিরাপদ থাকাকে বোঝানো হয়েছে। দীর্ঘদিন হাতির
নানা অত্যাচারে বনের পশুরা শান্তিতে ঘুমাতে পারেনি। শিয়াল কৌশলে হাতিকে নদীতে ডুবিয়ে কুপোকাত করে। অত্যাচারী হাতির শাস্তিতে
বনের সব প্রাণী আনন্দ-উল্লাসে মেতে উঠে বলেছিল,

‘আর দেখব না হাতির ছায়া

আমরা এখন মুক্ত স্বাধীন

নাচছি সবাই তা-ধিন-তা-ধিন।

বাকি অংশ ছাপা হবে আগামীকাল

শিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন