বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এবার এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী ২২ লাখ ২৭ হাজার ১১৩ জন। গতবারের চেয়ে এবার পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১ লাখ ৭৯ হাজার ৩৩৪ জন বেড়েছে। গতবার পরীক্ষার্থী ছিল ২০ লাখ ৪৭ হাজার ৭৭৯ জন। গত বছর ফেব্রুয়ারিতে এসএসসি পরীক্ষা হওয়ার পরের মাসে দেশে করোনা সংক্রমণ শুরু হয়। এরপর সারা দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যায়। গত সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলেছে। এরপর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা দিয়ে আবার দেশে পাবলিক পরীক্ষা নেওয়া শুরু হচ্ছে।

আন্তশিক্ষা বোর্ড পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক উপকমিটির আহ্বায়ক ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক এস এম আমিরুল ইসলাম আজ শনিবার প্রথম আলোকে বলেন, পরীক্ষার জন্য সংশ্লিষ্ট সবাই প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিয়েছেন। তবে করোনা সংক্রমণ এখনো একেবারে শেষ হয়ে যায়নি। সে কারণে অভিভাবকদের প্রতি অনুরোধ, তাঁরা যেন পরীক্ষাকেন্দ্রের সামনে ভিড় না করেন। সবাই যেন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলেন।
আগামীকাল সকাল ১০টায় বিজ্ঞান শাখার পদার্থবিজ্ঞান (তত্ত্বীয়) বিষয়ের পরীক্ষা দিয়ে শুরু হবে এসএসসি পরীক্ষা। শেষ হবে ২৩ নভেম্বর। আগেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে অবশ্যই পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষাকক্ষে আসন গ্রহণ করতে হবে। মোট দেড় ঘণ্টার পরীক্ষায় এমসিকিউ ও সৃজনশীল অংশের পরীক্ষার মধ্যে কোনো বিরতি থাকবে না। কোভিড-১৯ মহামারির কারণে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা হবে।

সাধারণত এসএসসি পরীক্ষা ফেব্রুয়ারিতে এবং এইচএসসি পরীক্ষা এপ্রিল মাসে শুরু হয়। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে নির্ধারিত ওই সময়ে এই দুই পরীক্ষা নেওয়া যায়নি। এখন ভিন্ন ব্যবস্থায় এসব পরীক্ষা হচ্ছে। এইচএসসি পরীক্ষা আগামী ২ ডিসেম্বর শুরু হয়ে শেষ হবে ৩০ ডিসেম্বর।

অন্যদিকে আগেই ঘোষণা দেওয়া হয়েছে গতবারের মতো এবারও জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা হবে না। তবে মাধ্যমিকে ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত তিন বিষয়ে (বাংলা, ইংরেজি ও গণিত) বার্ষিক পরীক্ষা এবং দশম শ্রেণির প্রাক্-নির্বাচনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে এ মাসের ২৪ নভেম্বর থেকে ৩০ নভেম্বরের মধ্যে। প্রাথমিকের পঞ্চম শ্রেণির প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষাও হবে না। এমনকি পঞ্চম শ্রেণিসহ প্রাথমিকের অন্যান্য শ্রেণির জন্য বার্ষিক পরীক্ষাও হচ্ছে না। ওয়ার্ক শিটসহ (বাড়ির কাজ) নিজেদের মতো করে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করে ওপরের শ্রেণিতে ওঠানোর ব্যবস্থা করবে নিজ নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

শিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন