default-image
করোনার কারণে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো সংকটে পড়েছে। এ অবস্থা মোকাবিলায় শিক্ষার্থীদের জন্য অনলাইনে ক্লাস নেওয়া, টিউশন ফিতে ছাড়সহ নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এসব নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের সঙ্গে কথা বলেছেন প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদক আহমেদ দীপ্ত

করোনার কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেলে অনেক শিক্ষার্থী ভেবেছিল কদিন বাদেই আবার খুলবে। তবে করোনা পরিস্থিতি দীর্ঘায়িত হওয়ায় অনলাইন ক্লাসের প্রথম দিকে শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণ কম ছিল। পিছিয়ে পড়ার ভয়ে পরে অবশ্য শিক্ষার্থীদের অনলাইন ক্লাসে অংশগ্রহণ বাড়ল।

অনলাইনে ক্লাস হলেও খুব কঠিন হয়ে দাঁড়াল পরীক্ষা নেওয়া। সামনাসামনি পরীক্ষা পদ্ধতি তো অনলাইনে সম্ভব নয়। তবু চেষ্টা করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

শিক্ষার্থীরা বাসায় বসেই পরীক্ষা দিল। পরীক্ষার খাতার ছবি তুলে তা শিক্ষকদের পাঠাত শিক্ষার্থীরা। তারপর শিক্ষকেরা সে খাতা মূল্যায়ন করেছেন। শিক্ষার্থীরা সত্যিই পড়েছে কি না, তা যাচাই করতে অনলাইনে ভাইভাও নেওয়া হলো। অনলাইনে ক্লাস নেওয়া পুরোটাই নতুন একটা অভিজ্ঞতা। শিক্ষার্থীদের সেমিস্টার ফি দিতে যাতে অসুবিধা যেন না হয়, সে জন্য চার ধাপে টিউশন ফি দেওয়ার ব্যবস্থা করা হলো। যেসব শিক্ষার্থী আর্থিক সমস্যায় পড়েছিল, তাদের সুদহীন ঋণসুবিধা দেওয়া হলো।

চৌধুরী মফিজুর রহমান: উপাচার্য, ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি

শিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন