default-image

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে এমফিল ও পিএইচডি কোর্সে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। এমফিল ও পিএইচডি কোর্সে ভর্তির জন্য আগ্রহী প্রার্থীদের প্রাথমিক আবেদনপত্র আহ্বান করেছে রাবি। বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট থেকে ভর্তির প্রাথমিক আবেদনপত্র সংগ্রহ করে আগামী ০৫–০৫–২০২১ তারিখের মধ্যে আবেদনপত্র বিভাগে জমা দিতে হবে। স্নাতক (পাস) ও স্নাতকোত্তর (পূর্ব ভাগ ও শেষ ভাগ) ডিগ্রিধারীরা এমফিল/পিএইচডি কোর্সে ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন না। নির্ধারিত তারিখের পর কোনো আবেদনপত্র গ্রহণ করা হবে না। আগ্রহী প্রার্থীরা সংশ্লিষ্ট বিভাগ থেকে এমফিল ও পিএইচডি কোর্সে ভর্তিসংক্রান্ত অন্য শর্তাবলি নিজ দায়িত্বে জেনে নিতে পারবেন।

বিস্তারিত তথ্যসহ পূর্ণ বিজ্ঞপ্তি এবং প্রাথমিক আবেদনপত্র রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট http://www.ru.ac.bd তে পাওয়া যাবে।

প্রাথমিক আবেদনপত্রের সঙ্গে সব পরীক্ষার সনদ ও মার্কস সার্টিফিকেটের সত্যায়িত ফটোকপি সংযুক্ত করতে হবে। ভর্তির প্রাথমিক আবেদনপত্রে সরবরাহকৃত তথ্যাদি ভুল প্রমাণিত হলে আবেদনপত্র বাতিল হবে। ভর্তির শেষ তারিখ থেকে এক মাসের মধ্যে আইসিটি সেন্টার, রাবির মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। যাঁরা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়া অন্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিগ্রিপ্রাপ্ত হয়েছেন, তাঁদেরও মাইগ্রেশন সার্টিফিকেট জমা দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে।

default-image

বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধি মোতাবেক এমফিল কোর্সে ভর্তিপ্রাপ্ত গবেষকদের মধ্য থেকে প্রতি বিভাগে একজনকে মাসিক চার হাজার টাকা হারে দুই বছরের জন্য ফেলোশিপ দেওয়া হবে। পিএইচডি গবেষক ও এমফিল/পিএইচডি কোর্সে গবেষণারত চাকরিজীবীদের বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কোনোও ধরনের ফেলোশিপ দেওয়া হবে না। চাকরিরত প্রার্থীদের ক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষের অনুমতি থাকবে হবে। এমফিল কোর্সে গবেষণার জন্য এক বছর এবং পিএইচডির জন্য দুই বছরের ছুটি পাবেন, এই মর্মে সম্মতিপত্র (নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষের) অবশ্যই আবেদনের সঙ্গে সংযুক্ত করতে হবে।

বিজ্ঞাপন

এমফিল প্রোগ্রামে ভর্তির যোগ্যতা

৫. ১. প্রার্থীর অবশ্যই এসএসসি/সমমান এবং এইচএসসি/সমমান পরীক্ষার সনাতন পদ্ধতিতে যে কোনো একটিতে ন্যূনতম প্রথম বিভাগ ও অন্যটিতে ন্যূনতম দ্বিতীয় বিভাগ অথবা গ্রেডিং পদ্ধতিতে উভয় পরীক্ষার প্রতিটিতে চতুর্থ বিষয়সহ ন্যূনতম জিপিএ ৩.৭৫ থাকতে হবে এবং

৫.২. কলা/সামাজিক বিজ্ঞান/চারুকলা অনুষদভুক্ত বিভাগগুলো থেকে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের ক্ষেত্রে স্নাতক (সম্মান)/সমমান এবং স্নাতকোত্তর পরীক্ষার সনাতন পদ্ধতিতে যেকোনো একটিতে ন্যূনতম ৫৫ শতাংশ ও অন্যটিতে ন্যূনতম ৫০ শতাংশ নম্বর থাকতে হবে। তবে কলা অনুষদভুক্ত ইংরেজি বিভাগ থেকে উত্তীর্ণ ছাত্রছাত্রীদের ক্ষেত্রে উভয় পরীক্ষায় ন্যূনতম ৫০ শতাংশ নম্বর থাকতে হবে। অথবা গ্রেডিং পদ্ধতিতে সিজিপিএ ৪ স্কেলের মধ্যে উভয় পরীক্ষার একটিতে ন্যূনতম সিজিপিএ ৩.২৫ ও অন্যটিতে ন্যূনতম সিজিপিএ ৩.০০ থাকতে হবে।

অথবা

আইন/বিজ্ঞান/বিজনেস স্টাডিজ/জীববিজ্ঞান/কৃষি/প্রকৌশল/ভূবিজ্ঞান/ফিশারিজ/ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিমেল সায়েন্সেস অনুষদভুক্ত বিভাগগুলো থেকে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের ক্ষেত্রে স্নাতক (সম্মান)/ (সমমান) এবং স্নাতকোত্তর পরীক্ষার সনাতন পদ্ধতিতে উভয় পরীক্ষায় ন্যূনতম ৫৫ শতাংশ নম্বর থাকতে হবে, অথবা গ্রেডিং পদ্ধতিতে সিজিপিএ ৪ স্কেলের মধ্যে উভয় পরীক্ষায় ন্যূনতম সিজিপিএ ৩.২৫ থাকতে হবে। অথবা, এমবিবিএস/বিডিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের ক্ষেত্রে সনাতন পদ্ধতিতে ন্যূনতম ৬০ শতাংশ নম্বর থাকতে হবে। ডিভিএম পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের ক্ষেত্রে সনাতন পদ্ধতিতে ন্যূনতম ৬০ শতাংশ নম্বর অথবা গ্রেডিং পদ্ধতিতে সিজিপিএ ৪ স্কেলের মধ্যে ন্যূনতম সিজিপিএ ৩.৫০ থাকতে হবে।

অথবা

যেসব প্রার্থীর ওপরে বর্ণিত সব ধারার উপধারা (১) ও (২)-এর শিক্ষাগত যোগ্যতার কোনো একটি শর্ত পূরণ হয় না, তাঁরা এমফিল প্রোগ্রামে ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন, যদি তাঁদের (ক) পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়/বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন কর্তৃক অনুমোদিত)/সরকারি কলেজে তিন বছরের শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা অথবা (খ) অনার্স পর্যায়ের বেসরকারি ডিগ্রি কলেজে অনার্স শ্রেণিতে তিন বছরের শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা

অথবা

(গ) কোনো স্বীকৃত গবেষণা প্রতিষ্ঠানে তিন বছরের গবেষণাকাজের অভিজ্ঞতা এবং সেই সঙ্গে [(গ)-এর ক্ষেত্রে] কোনো স্বীকৃত জার্নালে ন্যূনতম দুটি গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়ে থাকে। শিক্ষাজীবনের কোনো পর্যায়েই দ্বিতীয় বিভাগ/শ্রেণি/সিজিপিএ ৩.০০–এর কম থাকলে ভর্তির অযোগ্য বলে বিবেচিত হবেন। এই উপধারার অধীন এমফিল প্রোগ্রামে ভর্তির অনুমতিপ্রাপ্ত প্রার্থীরা পিএইচডি প্রোগ্রামে স্থানান্তরিত হতে পারবেন না।

পিএইচডি প্রোগ্রামে ভর্তির যোগ্যতা

৫.১.

প্রার্থীর এমফিল বিধির ৫ ধারার উপধারা (১) ও (২)-এর ভর্তির যোগ্যতাসহ অবশ্যই এমফিল/সমমান ডিগ্রি থাকতে হবে। তবে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকেরা এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমফিল ডিগ্রিপ্রাপ্ত ব্যক্তিরা পিএইচডি প্রোগ্রামে ভর্তির জন্য প্রাথমিক আবেদনপত্র জমা দিতে পারবেন।

অথবা

২.

প্রার্থীর যদি এমফিল বিধির ৫ ধারায় বর্ণিত ভর্তির যোগ্যতা থাকে এবং তিনি যদি বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন/সরকারি বৃত্তি/বাংলাদেশ একাডেমি অব সায়েন্সেস ফেলোশিপ অর্জন করে থাকেন, তাহলে তাঁরা পিএইচডি প্রোগ্রামে ভর্তির জন্য আবেদন জমা দিতে পারবেন।

অথবা

৩.

এমফিল বিধির ৫ ধারার উপধারা (১) ও (২)–এর ভর্তির যোগ্যতাসহ (ক) পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়/বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন কর্তৃক অনুমোদিত)/সরকারি কলেজে সাত বছরের শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা অথবা (খ) অনার্স পর্যায়ের বেসরকারি ডিগ্রি কলেজে অনার্স শ্রেণিতে সাত বছরের শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা অথবা (গ) কোনো স্বীকৃত গবেষণা প্রতিষ্ঠানে সাত বছরের গবেষণাকাজের অভিজ্ঞতা এবং সেই সঙ্গে [(গ)-এর ক্ষেত্রে] কোনো স্বীকৃত জার্নালে ন্যূনতম তিনটি গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়ে থাকলে প্রার্থী পিএইচডি প্রোগ্রামে ভর্তির প্রাথমিক আবেদনপত্র জমা দিতে পারবেন। তবে শিক্ষাজীবনের কোনো পর্যায়ে দ্বিতীয় বিভাগ/শ্রেণি/সিজিপিএ ৩.০০–এর কম থাকলে ভর্তির অযোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।

বিস্তারিত দেখুন এখানে

ভর্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন